শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:২৮

কুমিল্লায় দাম বাড়ার গুজবে লাইন ধরে লবণ কিনছেন ক্রেতারা

কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লায় দাম বাড়ার গুজবে লাইন ধরে লবণ কিনছেন ক্রেতারা

কুমিল্লায় লবণ নিয়ে ব্যাপক গুজব ছড়িয়ে পড়েছে। নগর থেকে শুরু করে গ্রামগঞ্জের হাট-বাজার ও সুপার শপগুলোতে সকাল থেকে লবণ কিনতে লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে দেখা যায় সাধারণ মানুষকে। 

মঙ্গলবার দিনভর বিভিন্ন হাট বাজার ও সুপার শপে অভিযান পরিচালনা করে কুমিল্লা জেলা ও পুলিশ প্রশাসন। এ সময় বিভিন্ন দোকানীকে জরিমানা ও সর্তক করা হয়। 

বাজার মনিটরিং করার সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমন জানান, বাজারের নিত্যপণ্যের কৃত্রিম সংকট বন্ধ করাসহ বিশেষ কোনো খাদ্য পণ্য নিয়ে গুজব সৃষ্টি না করতে পারে সে ব্যাপারে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে অভিযান চলছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

এদিকে, লবণসহ নিত্য পণ্যের বাজার দর ঠিক রাখার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের কয়েকটি টিম বাজার মনিটরিং করতে মাঠে নেমেছে। নগরীর বাদুরতলা আমানা বিগবাজার সুপার শপ, স্বপ্ন সুপারশপসহ নগরীর নিউমার্কেট ও রাজগঞ্জে অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাজাহারুল ইসলাম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসান রাসেল। এ সময় আমানা বিগ বাজারে লবণের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির চেষ্টা করায় আমানা বিগ বাজারের কর্তৃপক্ষকে সর্তক করে দেয়া হয়।

অন্যদিকে, নগরীর অলি-গলির দোকানগুলোতে ন্যায্যমূল্যে পণ্যদ্রব্য বিক্রি হচ্ছে কিনা তা মনিটরিং করতে দেখা যায় কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের  নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া আক্তারকে। মঙ্গলবার বিকেলে অভিযান পরিচালনার সময় বাগিচাগাঁও এলাকার বেশ কয়েকজন দোকানিকে অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রি করায় জরিমানা ও সর্তক করে দেয়া হয়। 

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া আক্তার জানান, কুমিল্লা জেলায় নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি করার প্রবণতা বন্ধে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। জনস্বার্থে আমাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মো. আনোয়ারুল হক, ডিবি ওসি মো. আনোয়ারুল আজিম প্রমুখ।

এদিকে, সন্ধ্যা ৭টায় এই প্রতিবেদন লেখার সময় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাজার মনিটরিং কমিটির জরুরি সভা চলছিল। সভায় লবণের দাম বাড়ার গুজব বন্ধে সকলকে ভূমিকা রাখার আহবান জানান জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর।  

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য