শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৩৩
আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:০৫
প্রিন্ট করুন printer

নারায়ণগঞ্জে ৪ শ্রমিক হত্যায় ২ জনের ফাঁসি, ৯ জনের যাবজ্জীবন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:

নারায়ণগঞ্জে ৪ শ্রমিক হত্যায় ২ জনের ফাঁসি, ৯ জনের যাবজ্জীবন
প্রতীকী ছবি

নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলায় বালুবাহী নৌযানের (বাল্কহেড) চার শ্রমিক হত্যার মামলায় দুই আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও ৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ৯ জনের প্রত্যেককে আরো ৫০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো এক বছরের কারাদণ্ড দেন। এছাড়া একটি ধারায় ১১ জনকে ১০ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ড দেন আদালত। হত্যাকাণ্ডের এক যুগ পর রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী দুপুরে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক বেগম সাবিনা ইয়াসমিন এ রায় ঘোষণা করেন। 

রায় ঘোষণার সময় ১১ আসামির মধ্যে ৭জন আদালতে উপস্থিত থাকলেও ৪ জন পলাতক আছেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি হলেন তাজুল ইসলাম ওরফে তাজু ফিটার (৫০) ও মহিউদ্দিন ওরফে মহী ফিটার (৪৮)। যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন চান মিয়া, দুলাল মিয়া, মজিবর, আব্দুল মান্নান, আরিফ ও পলাতক জলিল, সাইফুল ইসলাম, দুলাল ও শফিকুল। এ মামলার ইব্রাহিম নামে আরো এক আসামি মারা যায়।

নিহত শ্রমিকদের পরিবারের পক্ষে বাংলাদেশ কার্গো ট্রলার বাল্কহেড শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজি নং বি ২১১২) এর সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বেপারী বলেন, ‘এ রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। দ্রুত রায় কার্যকর করার দাবি জানাচ্ছি।’

এ রায়ে অসন্তেুাষ প্রকাশ করে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মহী ফিটারের ছেলে মো. জুয়েল বলেন, ‘আমার বাবা কাউকে হত্যা করেনি। আমার বাবা বিএনপির রাজনীতি করতো। জাতীয়তাবাদী নৌযান শ্রমিক দলের কর্মী। এজন্য প্রতিপক্ষের লোকজন তাদের ফাঁসিয়েছে। আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করবো। যাদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেয়া হয়েছে তারা মিথ্যা বলেছে। তাদের চাপ দিয়ে জবানবন্দি নেয়া হয়েছে। তারা জবানবন্দি প্রত্যাহার করেছে।’

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর