শিরোনাম
প্রকাশ : ১ জুলাই, ২০২১ ১৪:৪১
আপডেট : ১ জুলাই, ২০২১ ১৪:৪৬
প্রিন্ট করুন printer

বরিশালে লকডাউনের প্রথম দিনে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:

বরিশালে লকডাউনের প্রথম দিনে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন
Google News

সারাদেশের মতো বরিশালেও শুরু হয়েছে কঠোর লকডাউন। দূরপাল্লা ও স্থানীয় রুটের লঞ্চ-বাস এবং বেশিরভাগ দোকানপাঠ বন্ধ রয়েছে। নগরীর মধ্যেও থ্রি হুইলার বন্ধ রয়েছে। প্রথম দিন কিছু সংখ্যক মানুষ রাস্তায় বের হয়েছেন। কেউ কেউ জরুরি প্রয়োজনে রাস্তায় বের হলেও কিছু মানুষ রাস্তায় বেড়িয়েছেন কৌতুহলী হয়ে লকডাউন দেখতে। তাদের অনেকেই ব্যবহার করেননি মাস্ক। যদিও লকডাউন বাস্তবায়নে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা। 

সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে বেশিরভাগ দোকানপাঠ বন্ধ। চায়ের দোকাগুলোতে মানুষের ভিড় দেখা গেছে। সকালের দিকে বাজারে কিছুটা ভিড় থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাজার ফাঁকা হয়ে যায়। তবে নগরীর পোর্ট রোড মাছ বাজারে মাস্কবিহীন অনেক ক্রেতা-বিক্রেতা দেখা গেছে। নগরীর অভ্যন্তরে পায়ে চালিত কিছু রিক্সা, মোটরসাইকেল এবং পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল করছে। বিভিন্ন মোড়ে মোতায়েন করা পুলিশ সদস্যরা রিক্সা যাত্রী এবং পথচারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দিচ্ছেন। যাদের মাস্ক নেই তাদের মাস্ক পড়তে বাধ্য করছে। রাস্তায় বের হওয়া মানুষ নানা অজুহাত দিচ্ছে। 

লকডাউন বাস্তবায়নে সকাল সোয়া ১১টার দিকে ২০ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে মাঠে নামেন জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার। এ সময় তিনি বলেন, গত ৩ দিন জনগণকে সচেতন করা হয়েছে। এখন বিনা প্রয়োজনে রাস্তায় বের হলেই কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। 

রাস্তায় বের হওয়া মানুষদের নানাভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। ব্যতয় হলেই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মো. আলী সুজা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা প্রশাসন, বরিশাল। 

এদিকে সকাল সাড়ে ১১টায় নগরীর নথুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের চেকপোস্ট পরিদর্শন করেন মেট্রো পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান। এ সময় তিনি বলেন, প্রথম দিনের লকডাউনের চিত্র অনেকটাই সন্তোষজনক। এ জন্য নগরবাসীকে ধন্যবাদ জানান তিনি। লকডাউন বাস্তবায়নে নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ২০টি চেকপোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। টহল দিচ্ছে পুলিশ। বিনা প্রয়োজনে রাস্তায় বের হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান। 

বেলা ১২টার দিকে লকডাউন পরিস্থিতি দেখতে সদর রোড পরিদর্শন করেন বিভাগীয় কমিশনার মো. সাইফুল হাসান বাদল। এ সময় তিনি বলেন, বিভাগের ৬ জেলা এবং সিটি করপোরেশনের এলাকায় কঠোরভাবে লকডাউন প্রতিপালিত হচ্ছে। সল্প সংখ্যক কিছু মানুষ রাস্তায় বেড়িয়েছেন জরুরি প্রয়োজনে। জনগণকে নিজেদের স্বার্থেই আগামী ৭ দিন ঘরে থাকার আহ্বান জানান বিভাগীয় কমিশনার মো. সাইফুল হাসান বাদল।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 

এই বিভাগের আরও খবর