Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:১৩

ছাত্রদল সভাপতিকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

ছাত্রদল সভাপতিকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনিকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেছে তার পরিবার। শনিবার সন্ধ্যার পর ডিবি পুলিশ পরিচয়ে রাজধানীর বাড্ডা এলাকা থেকে তাকে আটক করে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বলে তার পারিবারিক সূত্র অভিযোগ করেছে। সন্ধ্যার পর থেকেই রনির ব্যবহূত মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে এবং তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না বলেও জানিয়েছেন তার পরিবারের সদস্যরা। তবে অসমর্থিত সূত্রে তারা জানতে পেরেছেন, রনিকে ঢাকার মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে।

এদিকে রনির সন্ধান দাবি করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা। রনির বড় ভাই রুবেল বলেন, ‘আমি নিজেও কয়েকটি স্থানে যোগাযোগ করেছি। কিন্তু আমার ভাইয়ের কোনো সন্ধান পাচ্ছি না। তাকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।’ ছোট ভাই রানা বলেন, ‘রনিকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া       হয়েছে। ফতুল্লা থানায় আমরা যোগাযোগ করেছি। তারা এ ব্যাপারে আমাদের কিছু জানাতে পারেনি।’ ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, তাদের থানায় রনি নামে কেউ আটক নেই। এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে ইতিমধ্যে বিবৃতি দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমূর আলম খন্দকার, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি শাহেদ আহমেদ প্রমুখ। তৈমূর আলম খন্দকার বিবৃতিতে বলেন, রাজনৈতিক কারণে গ্রেফতার করে গুম রাখা ও যথাসময়ে আদালতে উপস্থিত না করাটা সরকারের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে, যা অসাংবিধানিক ও মানবতাবিরোধী। পৃথক বিবৃতিতে মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদসহ সব যুগ্ম-আহ্বায়ক অবিলম্বে মশিউর রহমান রনির নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছেন।ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজিব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক মো. আকরামুল হাসানের বিবৃতিতে বলা হয়, রনিকে পরিকল্পিতভাবে গুম করা হয়েছে। তাদের দাবি, অবিলম্বে তাকে আইনের হাতে সোপর্দ করা হোক। পরে যদি সাজানো কোনো নাটকের মাধ্যমে তার সঙ্গে অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু করা হয়, এর দায়দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে।

এদিকে রনিকে ফিরে দেওয়ার আকুতি জানিয়েছেন তার স্বজনরা। তারা বলেন, অপরাধী হলে আদালতে সোপর্দ করুন, না হয় আমাদের সন্তান আমাদেরকে ফিরিয়ে দিন। গতকাল বিকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের হানিফ খান মিলনায়তনে পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানানো হয়। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, নিখোঁজ রনির খালা রাশেদা আক্তার, রনির খালা জাহানারা বেগম, মামাতো ভাই জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, মামাতো বোন ডলি আক্তার, বড়ভাই শেখ মো. আবু সাঈদ রুবেল, ছোটভাই মহিবুর রহমান রানা, ভাবী সানজিদা ইসলাম।

লিখিত বক্তব্যে রনির ছোটভাই মহিবুর রহমান রানা জানান, তার ভাই মো. মশিউর রহমান রনি (৩০) গত ১৫ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় পারিবারিক কাজে ঢাকা যায়। আর রাত পর্যন্ত ফিরে আসেনি। তবে রাত সাড়ে ১০টায় অজ্ঞাত এক ব্যক্তি ঢাকা থেকে টেলিফোনে জানায়, একটি কালো মাইক্রোবাসে করে কয়েকজন সাদা পোশাকধারী নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয়ে রনিকে তুলে নিয়ে যায়। এরপর থেকে নিখোঁজ রয়েছেন রনি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর