শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২০ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:০৮

খুলনায় রাতে আতশবাজি নিষিদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

খুলনায় রাতে আতশবাজি নিষিদ্ধ

খুলনায় যে কোনো ধরনের উৎসব বা অনুষ্ঠানে বিস্ফোরক দ্রব্য, আতশবাজি, পটকা বহন ও ফোটানো নিষিদ্ধ করেছে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি)। এ বিষয়ে সচেতনতার লক্ষ্যে গতকাল থেকে নগরীতে পুলিশ মাইকিং শুরু করেছে। যা চলবে আগামী সাত দিন পর্যন্ত। পুলিশের এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন নগরবাসী। কেএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু বলেন, কেএমপির আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্তে বিস্ফোরক দ্রব্য, আতশবাজি, পটকা বিক্রি ও ফোটানো নিষিদ্ধ করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে মাইকিং করে নগরবাসীকে সচেতন করা হচ্ছে। আদেশ অমান্য করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। খুলনায় রাতে প্রচ- আওয়াজে পটকা ফোটানোর কারণে অতিষ্ঠ হয়ে ওঠে জনজীবন। বিশেষ করে ক্লাব ও কমিউনিটি সেন্টারকেন্দ্রিক অনুষ্ঠানে উচ্চশব্দে পটকা ফুটানো হচ্ছে। এ ছাড়া নগরীর বিভিন্ন বাসাবাড়ির ছাদে প্রায়ই উচ্চশব্দে সাউন্ডবক্স বাজানো ও আতশবাজি ফোটানো হয়। এতে শিশু, বৃদ্ধ, স্কুলের শিক্ষার্থী ও হৃদরোগে আক্রান্তরা সময়-অসময়ের পটকার বিকট শব্দে অসহনীয় সময় পার করছেন। নগরীর শেখপাড়ার বাসিন্দা স্কুলশিক্ষক মশিউর রহমান বলেন, বিভিন্ন স্থানে রাতের বেলায় পটকা ও আতশবাজি ফুটিয়ে প্রচ- রকমের ভীতি সঞ্চার ও আতঙ্কের সৃষ্টি করা হয়। পটকা, বোমার অস্বাভাবিক শব্দে নগরীর বাসিন্দারা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। 

জানা যায়, ধর্মীয় অনুষ্ঠানের পাশাপাশি খুলনায় সামাজিক, পারিবারিক বা রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে আতশবাজি ও পটকা ফোটানো হচ্ছে। খুলনার বড় বাজার থেকে শুরু করে ফুটপাতের মুদি দোকানেও পটকা বিক্রি হয়। এ ছাড়া গোপনে অসাধু ব্যবসায়ীরা সীমান্তপথে উচ্চশব্দের পটকা চোরাচালানের মাধ্যমে আনছে।


আপনার মন্তব্য

close