শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৩১ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ জুলাই, ২০১৯ ২৩:৫১

ঈদে ট্রেনযাত্রা

অনলাইন টিকিট শেষ আধঘণ্টায়

নিজস্ব প্রতিবেদক

অনলাইন টিকিট শেষ আধঘণ্টায়
প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ করার জন্য ট্রেনের অগ্রিম টিকিট কিনতে ঘরমুখো মানুষের লম্বা লাইন। গতকাল কমলাপুর রেলস্টেশন -বাংলাদেশ প্রতিদিন

ট্রেনে ঈদযাত্রার আগাম টিকিট বিক্রির দ্বিতীয় দিনেও প্রাপ্তির ধীরগতিসহ অ্যাপে টিকিট হাতে না পাওয়ার অভিযোগ করেছেন টিকিটপ্রত্যাশীরা। বিক্রি শুরুর মাত্র আধঘণ্টার মধ্যেই শেষ হয়ে যায় অনলাইনে বরাদ্দ থাকা সব টিকিট। আবার শত কষ্ট সহ্য করে কাউন্টারে লাইনে দাঁড়িয়ে কাক্সিক্ষত টিকিট হাতে পেয়ে উচ্ছ্বসিত ছিলেন অনেকে। তবে কাউন্টার-স্বল্পতায় দীর্ঘ অপেক্ষায় নারীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। গতকাল আগাম বিক্রির দ্বিতীয় দিনে ৮ আগস্টের টিকিট দেওয়া হয়। কমলাপুর ছাড়াও রাজধানীতে আরও চারটি স্থান থেকে দেওয়া হয় ঈদযাত্রার আগাম টিকিট। কমলাপুরে সময় যত গড়িয়েছে টিকিটপ্রত্যাশী মানুষের ভিড় কাউন্টার ছাড়িয়ে পৌঁছে গেছে স্টেশনের প্রবেশমুখ পর্যন্ত। সকাল ৯টায় কাউন্টার খুলে দেওয়ার পরই কমতে থাকে তাদের অপেক্ষার প্রহর। শত ভোগান্তি সহ্য করে যারা টিকিট হাতে পেয়েছেন তাদের মধ্যে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস দেখা যায়।

কমলাপুর রেল স্টেশনে দুদকের অভিযান : আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে টিকিট বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগে রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ও  ফুলবাড়িয়া কাউন্টারে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন। এ বিষয়ে আসা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল দুদকের প্রধান কার্যালয়ের একটি টিম অভিযানে যায়।

কমিশনের জনসংযোগ কার্যালয় জানিয়েছে, অভিযানে গিয়ে দুদক টিম টিকিট ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এবং টিকিট কাউন্টারগুলো পরিদর্শন করে। সেবাগ্রহীতারা জানান, সাধারণ শ্রেণির টিকিট পাওয়া  গেলেও এসি এবং প্রথম শ্রেণির টিকিট পেতে সমস্যা হচ্ছে। ফুলবাড়িয়া কাউন্টারে অভিযান চালিয়েও একই চিত্র পেয়েছে দুদক টিম। টিকিট বিক্রয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের অনুরোধ জানিয়েছে দুদক। এদিকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে গ্রাহক ভোগান্তির অভিযোগে বরিশালের বাকেরগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে অভিযান চালিয়েছে দুদক। ওই অফিসে সংযোগ এবং মিটারের জন্য গ্রাহকের কাছ থেকে ঘুষ গ্রহণ করা হয় মর্মে দুদকের কাছে অফিযোগ আসে। পরে দুদকের বরিশালের সমন্বিত জেলা কার্যালয় থেকে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে গিয়ে দুদক টিম দেখেছে, একটি লাইনের জন্য ১৭ হাজার টাকা অনৈতিকভাবে নিয়েছেন শহিদুল ইসলাম নামের একজন ইলেকট্রিশিয়ান। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বরিশালের পল্লী বিদ্যুতের জেনারেল ম্যানেজারকে অনুরোধ করেছে দুদক টিম।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর