শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০৪

তৃণমূল সংগঠিত করতে মাঠে জাপার কেন্দ্রীয় নেতারা

সভায় ক্ষোভের কথা জানান স্থানীয় নেতৃত্ব

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

খুলনা বিভাগের তৃণমূলে পার্টি শক্তিশালী ও গতিশীল করার মিশনে নেমেছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন, সংসদীয় এলাকার সাংগঠনিক অবস্থা ও সংগঠন পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা নিয়ে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় শুরু করেছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। তবে খুলনায় প্রতিনিধি সভায় সাংগঠনিক কর্মকান্ডে কেন্দ্রের নিষ্ক্রিয় ভূমিকা, কেন্দ্র থেকে চাপিয়ে দেওয়া কমিটি ও সুবিধাভোগী কিছু নেতার বিতর্কিত কর্মকান্ডে দল ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল নেতারা। গতকাল খুলনার অভিজাত হোটেলে বিভাগের ১০ জেলার প্রতিনিধি সভায় তৃণমূল নেতারা এ ক্ষোভের কথা জানান। এ সময় কেন্দ্রীয় নেতারা তাদের বক্তব্যে ক্ষোভ সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। সাতক্ষীরা জেলা জাপার সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশু বলেন, বিতর্কিতদের নেতা বানিয়ে জাপার অঙ্গসংগঠন জাতীয় তরুণ পার্টির কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যাদের সঙ্গে তৃণমূলের কোনো সম্পর্ক নেই। এভাবে বিতর্কিত সিদ্ধান্তে দল ধ্বংস হচ্ছে। একইভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করে জাপা নেতা সাইফুল ইসলাম সেলিম বলেন, জাতীয় পার্টি থেকে মন্ত্রী এমপি হওয়ার পর তারা সবাই আওয়ামী লীগের হয়ে যান। তারা তৃণমূলের সুবিধা-অসুবিধা নিয়ে মাথা ঘামায় না। ফোন করলেও অনেককে পাওয়া যায় না।

খুলনা নগর জাপার সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির সদস্য মোল্লা শওকত হোসেন বলেন, দলের তৃণমূলের ব্যর্থতার দায়ও কেন্দ্রের নিতে হবে। তিনি প্রশ্ন তোলেন, সাংগঠনিকভাবে খুলনা বিভাগকে বারবার অবহেলা করা হয়েছে। এখানে জাপার (সংসদ সদস্য) এমপি, মন্ত্রী এমনকি সংরক্ষিত আসনের এমপিও নেই। প্রতিনিধি সভার সভাপতি ও খুলনা জেলা সভাপতি শফিকুল ইসলাম মধু বলেন, ‘আজকে জাপাকে পুতুলের মতো নাচাচ্ছে সরকার। এভাবে পার্টি চলতে পারে না। দলকে অবশ্যই সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করা হবে।’ তিনি বলেন, শুরুতে ওয়ার্ডভিত্তিক কমিটি ও পর্যায়ক্রমে ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে দলকে শক্তিশালী করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায় বলেন, তৃণমূলকে শক্তিশালী করার জন্য সাংগঠনিক ধারাবাহিক তৎপরতা শুরু হয়েছে। অতিরিক্ত মহাসচিব মো. সাহিদুর রহমান টেপা বলেন, সাংগঠনিক কর্মকান্ড ও দলের রাজনৈতিক দিক নির্দেশনা জনগণের কাছে তুলে ধরার মাধ্যমে তৃণমূলকে উজ্জীবিত করা হচ্ছে। আগামী নির্বাচনের জন্য দলকে সুসংগঠিত করা হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর