শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:১৩

এনজিওতে কাজ করতে গিয়ে ৯ রোহিঙ্গা আটক

কক্সবাজার প্রতিনিধি

মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে এসিএফের এনজিওর অধীনে আলী কনস্ট্রাকশন নামে এক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সময় নয় রোহিঙ্গাকে স্থানীয় গ্রাম পুলিশের সহায়তায় আটক করেছে মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ। আটকরা হলেন- নজিম উল্লাহ (২৩) পিতা হামিদ হোসেন, বালু খালী ক্যাম্প ৮ই, লাল মোহাম্মদ (২৭) পিতা আবুল হোসেন, বালুখালী ৮ই, নুর আলম (৩০) পিতা আনোয়ার, বালুখালী ৯এফ টু, এশাদুল্লাহ (২৮) পিতা আবদুল করিম ক্যাম্প ৯, বালুখালী, কেফায়েত উল্লাহ (৩০) পিতা আবদুল আমিন, ক্যাম্প ৩জি ১৬ কুতুপালন, খায়রুল আমিন (২৫) পিতা খালামিয়া, বালুখালী ৯এফ ২, জিয়াবুল হোসেন (১৬) পিতা লালু মিয়া, জফুর উল্লাহ (২১) হামিদ হোসেন, হামিদ হোসেন (৫৫) পিতা অলী বকসু, এইচ ব্লক। অনুসন্ধানে জানা যায়, আন্তর্জাতিক এনজিও এসিএফের ওয়াশ প্রজেক্টে প্রায় দুই মাস ধরে গোপনে কাজ চালিয়ে যাচ্ছিলেন তারা। এদিকে মেসার্স আলী কনস্ট্রাকশনের মোহাম্মদ আলী জানান, এসিএফ-এর ম্যানেজার লজস্টিক দিদারুল ইসলাম, রাকিবুল আরেফিনসহ কয়েকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কিছুই জানে না বলে একজন আরেকজনের ওপর দোষ চাপিয়ে দায় এড়ানোর চেষ্টা করেন।

এ বিষয়ে মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ উল্লাহ জানান, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে চৌকিদার ও স্থানীয় সংবাদকর্মী রকিয়তের সহযোগিতায় তাদেরকে আটক করতে সক্ষম হই। এ ছাড়াও এসিএফ-এ কর্মরত চারজন বাঙালি কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় পাঠানো হয়েছে। আটক রোহিঙ্গাদের মাতারবাড়ী পুলিশ ক্যাম্পে হস্তান্তর করার প্রস্তুতি চলছে।

মহেশখালী ইউএনও মাহাফুজুর রহমান বলেন, আটক নয় রোহিঙ্গাকে পুলিশে হ্যান্ডওভার করার জন্য মাতারবাড়ী চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, এর পিছনে কে বা কারা জড়িত সে বিষয় খতিয়ে দেখা হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর