শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ মার্চ, ২০২১ ২৩:৩৪

হকার-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র নারায়ণগঞ্জ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

হকার-পুলিশের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় নারায়ণগঞ্জ শহর। ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও শহরের ১০-১২টি স্থানে কাপড়ে অগ্নিসংযোগ করে হকাররা। ভাঙচুর করে বিআরটিসি বাসসহ ৫-৬টি গাড়ি। নিক্ষেপ করা হয় ইটপাটকেল। পুরো শহরে বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। এ ঘটনায় হকার, পুলিশ সাংবাদিকসহ আহত হন প্রায় ১০ জন। গতকাল বিকালে এ ঘটনার সূত্রপাত হয়। সন্ধ্যা ৭টায় শত শত পুলিশ সদস্য বিভিন্ন স্পটে আগুন নিভিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক করে। জানা গেছে, এক সপ্তাহ ধরে শহরের চাষাঢ়া থেকে দ্বিতীয় রেলগেট পর্যন্ত প্রায় ১ থেকে দেড় হাজার হকার রাস্তায় বসার জন্য আন্দোলন করছে। এর ধারাবাহিকতায় হকাররা গতকাল বিকালে মিছিল নিয়ে প্রেস ক্লাবের সামনে জড়ো হন। রাস্তা থেকে সরে যেতে বললে হকাররা পুলিশের সঙ্গে তুমুল বাকবিত-ায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে পুলিশ মৃদু লাঠিচার্জ ও হকার নেতা আসাদুজ্জামানকে আটক করে। এর জেরে শুরু হয় ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া। ওই সময় হকাররা ফুটপাথে বিক্রির জন্য আনা কাপড়ে আগুন লাগিয়ে বঙ্গবন্ধু সড়কে বিভিন্ন স্পটে ছড়িয়ে দেয়। এতে পুরো শহরে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ক্ষুব্ধ হকাররা রাস্তায় থাকায় বিআরটিসি বাস, একটি প্রাইভেটকারসহ ডজনখানেক গাড়ি ভাঙচুর করে। পরে হকাররা শহরের কালীবাজার এলাকায় ও পুলিশ চাষাঢ়া সমবায় মার্কেট এলাকায় অবস্থান নেয়। এর মধ্যে শহরের ১০-১২টি স্পটে কাপড়ে আগুন দিয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করে তোলে হকাররা। নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল পুলিশের সার্কেল এএসপি সুভাষ সাহা জানান, আমরা ধৈর্য্যরে সঙ্গে ঘটনা মোকাবিলা করছি। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এসব ঘটনায় আমরা পরে আইনি ব্যবস্থা নেব।  ফুটপাথে হকার বসতে না দিতে ওপরের নির্দেশ রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর