শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৭ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ আগস্ট, ২০২১ ২৩:৪৫

জাবির সেই শামীম মোল্লাকে খুঁজছে আশুলিয়া পুলিশ

শরিফুল ইসলাম সীমান্ত, জাবি

Google News

গায়ের জোর দেখানোর নানাবিধ ঘটনার নায়ক শামীম মোল্লাকে আশুলিয়া থানা পুলিশ খুঁজছে। শামীম গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার পানধোয়া গ্রামে গুলি করলে আহত হয়েছেন তারই সহযোগী আবুল হোসেন (৪০)। আবুল সাভারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। গুলিবিদ্ধ আবুল হোসেন সাভারের আশুলিয়ার গোকুলনগর এলাকার মৃত বাদশা মিয়ার ছেলে। জানা যায়, পানধোয়ায় জাবি স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রভাষক মনসুর আলীর বাসার সামনে গুলিবিদ্ধ হন আবুল। মনসুর আলী জানান, তার বাসার সামনে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ক্রয়-বিক্রয় করে আসছে একটি চক্র। তিনি বেশ কিছুদিন ধরে চেষ্টা করছেন এসব কাজে বাধা দেওয়ার। তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাদক বেচাকেনায় বাধা দিলে মাদক বিক্রেতাদের সঙ্গে প্রভাষক মনসুরের কথা কাটাকাটি হয়। পরে আবুল হোসেনের নেতৃত্বে ১০-১৫ জন মনসুরের বাসার সামনে গেলে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। ভয় দেখানোর উদ্দেশে এক পর্যায়ে তাদের সঙ্গে থাকা শামীম মোল্লা তিন রাউন্ড গুলি ছোড়েন। তার মধ্যে একটি গুলি আবুলের হাত ভেদ করে বুকের ডান পাঁজরে গিয়ে বিদ্ধ হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম মোল্লা। একের পর এক অপকর্ম করে গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছেন একাধিকবার। নিয়মিত বিরতিতে অভিযোগ জমা পড়লেও ভয়ংকর এই ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে কখনই পেরে উঠেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। খোদ শাখা ছাত্রলীগও বারবার আশ্বাস দিয়েছে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার। কিন্তু করতে পারেনি কিছুই। আশুলিয়া থানার এসআই হারুন অর রশিদ বলেন, ‘আবুল হোসেন নামে একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে এনাম মেডিকেলে ভর্তি আছেন। আমরা অভিযানে আছি। এ ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’