শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০১:৪১

একই পরিবারের পাঁচজন নিখোঁজ!

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

একই পরিবারের পাঁচজন নিখোঁজ!
একই পরিবারের নিখোঁজ সদস্যরা -বাংলাদেশ প্রতিদিন

নারায়ণগঞ্জে সিদ্ধিরগঞ্জের একই পরিবারের সদস্যকে ছয় দিন ধরে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে দাবি পরিবারের। এ ঘটনায় গত বুধবার সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। স্বজনরা অসংলগ্ন আচরণ করায় নিখোঁজের বিষয়টি নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। নিখোঁজরা হলেন- গার্মেন্ট কর্মকর্তা জামাল সরদারের স্ত্রী নিপা (৩০), দুই মেয়ে আশামনি (১১), প্রিয়া মনি (৪), ভায়রার মেয়ে সুমাইয়া (১৪) ও শালার ছেলে আজিম (৭)। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ প্রযুক্তির মাধ্যমে ওই গৃহবধূর সবশেষ অবস্থান ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া শনাক্ত করলেও পরিবার একেক সময় একেক কথা বলছে। গার্মেন্ট কর্মকর্তা জামালের বাড়ি বরিশালের উজিরপুরে। তার শ্বশুর বাড়ি ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ায়।

জানা যায়, গাজীপুরে একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন জামাল। স্ত্রী-সন্তান থাকেন সিদ্ধিরগঞ্জের নুরবাগে ভাড়া বাড়িতে। জামাল প্রতি সপ্তাহের মতো গত ৭ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কর্মস্থল থেকে সিদ্ধিরগঞ্জ আসেন। ৯ ফেব্রুয়ারি ভোরে তিনি কর্মস্থলে চলে যান। যাওয়ার সময় স্ত্রীর হাতে বেতনের ৭০ হাজার টাকা দেন। ১০ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টা থেকে স্ত্রীর মোবাইল ফোন বন্ধ পান তিনি। পরদিন সকালে জামাল তার ছোট ভাইকে ফোন করে পাঠান বাসায়। তিনি বাসায় গিয়ে দেখেন দরজায় তালা ঝুলানো। জামাল বিষয়টি শ্বশুর বাড়িতে জানালে তারা রহস্যজনক আচরণ করতে থাকেন। একপর্যায়ে তিনি সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় জিডি করেন। জামাল জানান, গতকাল বিকালে সবশেষ তার শাশুড়িসহ স্ত্রীর পক্ষের কয়েক আত্মীয়ের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হয়েছে। কিন্তু মেয়ে ও নাতি নিখোঁজের খবরে তারা তেমন উদ্বিগ্ন নন। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি জানান, নিখোঁজ জিডি পাওয়ার পরই গৃহবধূর অবস্থান শনাক্তের চেষ্টা করি। তার সবশেষ লোকেশন ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া। আমরা গৃহবধূর মায়ের সঙ্গে কথা বললে তিনি উল্টো আমাদের বলছেন আপনারা কেন কল করেছেন। আমার মেয়ে জামাইকে কল করতে বলেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর