শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ৫ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:২০

১০ বছর ধরে শিকলবন্দী

নালিতাবাড়ী প্রতিনিধি

১০ বছর ধরে শিকলবন্দী
শিকলে বাঁধা শিশু তসলিমা -বাংলাদেশ প্রতিদিন

১০ বছর ধরে চলছে প্রতিবন্ধী তাসলিমার শিকলবন্দী জীবন। তসলিমা (১২) শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার কয়রাকুড়ি গ্রামের আবুল কাশেমের মেয়ে।

জানা যায়, কাশেমের তিন ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলেরা স্বাভাবিক হলেও একমাত্র মেয়ে মানসিক প্রতিবন্ধী। নিজেই নিজের হাত-পা কামড়ায় সে। শরীর থেকে জামা কাপড় খুলে ফেলে দেয়। সুযোগ পেলেই পালিয়ে যায় বাড়ি থেকে। তাসলিমার বয়স যখন দুই বছর তখন বাবা মারা যান। সেই থেকে মনোয়ারা চার সন্তানসহ সংসারের দায়িত্ব নেন। তিনি বাজার থেকে তেল কিনে বাড়ি বাড়ি বিক্রি করে সংসার চালান। মা বাড়ি না থাকায় ১০ বছর ধরে ঘরের ভিতর শিকলবন্ধী থাকতে হয় তাসলিমাকে। অর্থাভাবে মেয়েকে কোনো চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতে পারেননি। মনোয়ারা বলেন, ‘ছেলেরা বিয়ে করে আলাদা। তারা রিকশা চালিয়ে সংসার চালায়। ছোট্ট ভাঙা ঘরে এখন মা মেয়ে বসবাস করেন।’ মনোয়ারা বলেন, প্রতিদিন সকালে মেয়ের দুই হাতে ও দুই পায়ে শিকল পরাই। রান্না করে মেয়েকে খাওয়ানোর পর নিজে খেয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে প্রয়োজনীয় পণ্য নিয়ে ফেরি করতে গ্রামে বেরিয়ে পড়ি। এ ভাবে সারা দিন মেয়েটি না খেয়ে শুয়ে থাকে। সন্ধ্যার আগে বাড়ি ফিরে রান্না করি। তারপর দুজনে খেয়ে শুয়ে পড়ি। এ ভাবে কাটে আমাদের রাত-দিন। সম্প্রতি মেয়ের একটা প্রতিবন্ধী কার্ড এবং মনোয়ারা বেগম বিধবা কার্ড পেয়েছেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর