শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৪ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ মার্চ, ২০২১ ০১:০১

চায়ের দোকানের ছুরি এনে পরিচ্ছন্ন কর্মীকে খুন

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

চায়ের দোকানের ছুরি এনে পরিচ্ছন্ন কর্মীকে খুন

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে এক মাদকাসক্ত যুবক চায়ের দোকান থেকে ছুরি এনে প্রকাশ্য দিবালোকে খুন করলেন মির্জাপুর পৌরসভার পরিচ্ছন্ন কর্মী আলিমুলকে (৩২)।  গতকাল দুপুরে উপজেলার বাইমহাটি এলাকার যমুনা জেনারেল হাসপাতালের সামনে এই ঘটনা ঘটে। নিহত আলিমুল (৩২) বাইমহাটি গ্রামের সেলিম মোল্লার ছেলে। অভিযুক্ত যুবক সাব্বির একই এলাকার আমানউল্লাহর ছেলে। তিনি যমুনা জেনারেল হাসপাতালের নিরাপত্তারক্ষী হিসেবে কাজ করেন। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, যমুনা জেনারেল হাসপাতালের সামনে অজ্ঞাত এক দম্পতির ঝগড়া মীমাংসা করতে এগিয়ে যান আলিমুল। একপর্যায়ে সাব্বিরও সেখানে যান। এরপর সাব্বির ও আলিমুলের বাকবিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে সাব্বির পাশের চায়ের দোকান থেকে ছুরি এনে আলিমুলের পেটে আঘাত করেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

 খবর পেয়ে মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র সালমা আক্তার শিমুল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং কুমুদিনী হাসপাতালে আলিমুলকে দেখতে যান। পরিচ্ছন্ন কর্মী আলিমুল খুনের ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে প্রযোজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান মেয়র।

মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত সাব্বিরকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

বাগেরহাটের মোল্লাহাটে আড়াই বছর বয়সী রাইসা আক্তার নামের শিশু কন্যাকে আছড়ে মেরে ফেলেছেন তার বাবা। গত সোমবার রাতে মোল্লাহাট উপজেলার উদয়পুর গ্রামের এই মর্মান্তিক হত্যার ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে ঘাতক বাবা হুমায়ুন সরদার পলাতক রয়েছেন। ময়নাতদন্তের পর গতকাল দুপুরে বাগেরহাট হাসপাতাল মর্গে সম্পন্ন হয়েছে। মোল্লাহাট থানার ওসি কাজী গোলাম কবির বলেন, স্ত্রীর সঙ্গে পারিবারিক কলহের জেরে সোমবার রাত ৮টার দিকে রাইসাকে আছাড় দেন তার পিতা  হুমায়ুন সরদার। এতে ঘটনাস্থলেই রাইসা মারা যায়। ঘটনার পর থেকে হুমায়ুন পলাতক আছেন।


আপনার মন্তব্য