শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৮ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ মে, ২০২১ ২২:৫৮

হত্যা মামলার জেরে মগনামা পুরুষশূন্য

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

হত্যা মামলার জেরে মগনামা পুরুষশূন্য
Google News

কক্সবাজারের পেকুয়ায় সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলি ও কিরিচের কোপে জয়নাল আবেদিন (৩৮) নামে এক ব্যবসায়ীকে হত্যার ঘটনায় ৪২ জনকে আসামি করা হয়েছে মামলায়। ওই মামলায় গ্রেফতার এড়াতে মগনামা ইউনিয়ন পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে। এ সুযোগে বাদীপক্ষের লোকজন আসামিদের ঘরবাড়ি ভঙচুর ও মালামাল লুট করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নিহতের ছোট ভাই আমিরুজ্জামান বাদী হয়ে পেকুয়া থানায় এ হত্যা মামলা  করেন।  সরেজমিন দেখা যায়, মগনামা ইউনিয়নের আফজালিয়া পাড়ার কোনো বাড়িতে পুরুষ নেই। শুধু নারী এবং শিশুরা বাড়িতে অবস্থান করছেন। ছেনু আরা বেগম নামের এক গৃহবধূ বলেন, জয়নাল আবেদীন নিহতের ঘটনায় মামলার পর থেকে আমার স্বামী ও পাড়ার পুরুষ মানুষ পালিয়ে যায়। মামলার এজাহারে আমার স্বামীর নাম না থাকলেও ওই মামলায় অজ্ঞাত ১০ জনকে আসামি করা হয়েছে। আফজালিয়া পাড়ার বাসিন্দা মোজাম্মেল হক বলেন, ৫ মে সন্ধ্যার দিকে একদল অস্ত্রধারী লোক আমার বাড়িতে হামলা করে। এ সময় পুরুষ মানুষ না থাকায় তারা তিনটি গরু লুট করে নিয়ে যায়। মকছুদ নামের এক ব্যক্তির মৎস্য ঘেরের বাসা আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে ঢালাওভাবে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের হত্যা মামলার আসামি করায় গত  বৃহস্পতিবার কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। ওই সময় হত্যা মামলায় জড়িয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের হয়রানি করার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়। গতকাল বিকালে জেলা আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল মগনামায় ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যায়। পেকুয়া থানার ওসি মো. সাইফুর রহমান মজুমদার বলেন, কারও ঘরে হামলা বা লুটপাটের ঘটনা আমার জানা নেই। কেউ অভিযোগ দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।   উল্লেখ্য, গত ২ মে রাতে জয়নাল আবেদীন নামের এক ব্যবসায়ীকে গুলি ছোড়ে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এর আগে চায়ের দোকানে ফ্যানের বাতাস খাওয়াকে কেন্দ্র করে নেজাম উদ্দিন ছোটন ও জয়নাল আবেদীনের ছোট ভাই শাহাব উদ্দিনের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার জের ধরে ছোটন ও আবু ছৈয়দের নেতৃত্বে ১০/১৫ জন লোক জয়নাল ও আলী আকবরের ওপর সশস্ত্র হামলা করে।