শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:০৮

নওগাঁয় কলেজ ছাত্রীর অশ্লীল ছবি তুলে ইন্টারনেটে প্রচারের হুমকি, গ্রেফতার ১

নওগাঁ প্রতিনিধি

নওগাঁয় কলেজ ছাত্রীর অশ্লীল ছবি তুলে ইন্টারনেটে প্রচারের হুমকি, গ্রেফতার ১

নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার নিয়ামতপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় এ্যান্ড কলেজের ছাত্রী রাব্বিনা আক্তার সুমীর (১৮) মাথার চুল কেটে, অশ্লীল ছবি তুলে ইন্টারনেটে প্রচারের হুমকি দিয়েছে এক বখাটে। এ ঘটনায় কলেজ ছাত্রীর বাবা আমিরুল ইসলাম বাদী হয়ে আজ সোমবার দুপুরে থানায় মামলা দায়ের করলে অভিযুক্ত রায়হানকে (২৫) গ্রেফতার করা হয়। রায়হান উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের ঝাজিরা গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে।

অভিযোগ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, গতকাল রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) বেলা ৫টায় বালাহৈর বখাটে রায়হান তার ভাড়া বাড়িতে রাব্বিনা আক্তার সুমীকে ডেকে নিয়ে গিয়ে রায়হান ও তার স্ত্রী  সুমীর মাথার চুল কেটে, মারধর করে অশ্লীল ছবি তোলে। রাব্বিনা আক্তার সুমী উপজেলা সদর ইউনিয়নের শাংশৈইল গ্রামের আমিরুল ইসলামের মেয়ে।

সুমী বলেণ, রায়হান এক মাস যাবত আমাকে বিভিন্ন ভাবে উক্তত্য করতো। বিভিন্ন কুপ্রস্তাব দিত। আমি রাজী না হওয়ায় গতকাল রবিবার বেলা ৩টা হতে ৪টা পর্যন্ত কম্পিউটার প্রশিক্ষন শেষে আমার স্যার নিয়ামতপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক কামাল হোসেনের নিকট প্রাইভেটের টাকা দিতে গেলে বালাহৈর জামে মসজিদের কাছে আসলে রায়হান ও তার তিন বন্ধু আমাকে জোরপূর্বক তার ভাড়া বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে আমাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে। আমার মাথার চুল কেটে ফেলে এবং আমার অশ্লীল ছবি তুলে হুমকি দেয়। আর যদি এসব কাউকে বলি তাহলে আমাকে মেরে ফেলবে। 

সুমী আরও বলেন, আমাকে দুই ঘন্টা ঘরে আটকে রেখে আমার অশ্লীল ছবি তুলে সন্ধ্যা ৭টার পরে থানায় নিয়ে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে মিথ্যা জবানবন্দি দিতে বাধ্য করে। পরে আমার নানা থানায় এসে আমাকে নানা বাড়িতে নিয়ে যায়। রাত ১২টায় শারীরিকভাবে বেশী অসুস্থ হলে আমাকে হাসপাতালে নিয়ে এসে ভর্তি করান। 

এ বিষয়ে অভিযুক্ত রায়হান গ্রেফতারের বিষয়ে বলেন, সুমী গত তিন চার দিন আগে আমার বাসায় এসে আমার স্ত্রী রূপাকে একটি ছেলের সাথে সময় কাটানোর প্রস্তাব দেয়। আমি সেদিন রাজশাহী গিয়েছিলাম। আমি বাড়ি আসলে আমার স্ত্রী রূপা বিষয়টি আমাকে জানালে আমি সেদিন থেকে সুমীকে খুঁজছিলাম। গতকাল রবিবার বেলা ৫টায় তাকে বালাহৈর জামে মসজিদের কাছে সুমীকে পেলে তাকে আমার স্ত্রীর কাছে নিয়ে গেলাম চেনার জন্য। আমার স্ত্রী রূপা সুমীকে চিনতে পারায় তাকে ছেলেটির সম্পর্কে জানতে চাই। সুমী ছেলেটির কোন পরিচয় না দিলে আমরা তার অভিভাবকে ডাকতে বলি। সে অভিভাবকে না ডাকায় আমার স্ত্রী তাকে সামান্য চড় থাপ্পড় দিয়ে মাথার চুল কেটে দেয়। যাতে পরবর্তীতে আর কোন খারাপ কাজ করতে না পারে।

এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ন কবির বলেন, মেয়েটির বাবা আজ সোমবার দুপুরে থানায় বাদী হয়ে মামলা দায়ের করলে অভিযুক্ত রায়হানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আর তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর