শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:৫৮

জুতার মালা ও মাথার চুল কেটে গরু চুরির বিচার!

কক্সবাজার প্রতিনিধি

জুতার মালা ও মাথার চুল কেটে গরু চুরির বিচার!

কক্সবাজারে গরু চুরির অভিযোগে ছৈয়দ আহমদ (১৭) নামে এক যুবককে বেঁধে রাতভর নির্যাতন চালানোর অভিযোগ উঠেছে। গলায় ঝুলানো হয়েছে জুতার মালা। শুধু তাই নয়, কোদাল দিয়ে তার মাথার চুলও কেটে ফেলা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার জালিয়াপালং পশ্চিম সোনার পাড়া মোনাফ মার্কেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। 

শনিবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে ওই যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। ভিকটিম ছৈয়দ আহমদ পশ্চিম সোনার পাড়া এলাকার জাকির হোসেনের ছেলে। একই এলাকার শামসুল আলমের ছেলে জালাল উদ্দিন (৩৫) এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে। 

জালিয়া পালং ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর রফিকুল্লাহ জানান, ছৈয়দ আহমদ একজন ক্ষুদ্র দোকানদার। মুহাম্মদ নামের এক ব্যক্তির গরু চুরির অভিযোগে তাকে বাজার থেকে ধরে নিয়ে বেঁধে রাখা হয়। খবর পেয়ে তিনি নিজেই গিয়ে বিস্তারিত খোঁজ নেন। স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তাকে বিষয়টি তাৎক্ষণিক মৌখিকভাবে অবগত করেন।

তিনি জানান, যে গরুটি চুরির অভিযোগ করা হয়, সেই গরু মুহাম্মদের বাড়িতেই ছিল। তবু অপরাধী হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে মারধর না করতে অনুরোধ করেন মেম্বর রফিকুল্লাহ। তারপরও তার কথা মানা হয়নি।

শনিবার সকালে তিনি খবর পান, কোদাল দিয়ে ছৈয়দের মাথা মুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। রাতভর মারধর করেছে। এমন একটি ভিডিও হাতে পান তিনি। এরপর মেম্বর রফিকুল্লাহ গ্রাম পুলিশ (চৌকিদার) জাহাঙ্গীর, আবু সিদ্দিককে সাথে নিয়ে মুহাম্মদের বাড়ি থেকে ছৈয়দ আহমদকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান। ঘটনাটি তিনি থানার ওসিকে জানিয়েছেন। 

অভিযুক্ত জালাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিনি জানান, এলাকায় যাতে আর কোনো সময় গরু চুরির মতো ঘটনা না ঘটে, পুরো এলাকাবাসীকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য এটি করা হয়েছে। তাতে অন্য কোনো উদ্দেশ্য নাই।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর