শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর, ২০২০ ১৩:৪৯
প্রিন্ট করুন printer

মহাসড়কে যাত্রীবেশে চলন্তবাসে ডাকাতি, গুলিবিদ্ধসহ আহত ৯

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

মহাসড়কে যাত্রীবেশে চলন্তবাসে ডাকাতি, গুলিবিদ্ধসহ আহত ৯
প্রতীকী ছবি
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের চকরিয়ায় যাত্রী বেশে বাসে উঠে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ৭-৮ জন সশস্ত্র ডাকাত প্রায় ২০ কিলোমিটার সড়ক পথে চলন্ত বাসে যাত্রীদের জিন্মি করে সর্বস্ব কেড়ে নিয়েছে। এসময় কয়েকজন যাত্রী বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে ডাকাতরা এলোপাতাড়ি মারধর ও গুলি ছোড়ে। এসময় গুলিবিদ্ধ ২জন সহ ৯ জন আহত হয়েছেন।
 
শুক্রবার ভোর রাত সাড়ে তিনটা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত ঘণ্টাব্যাপী চলন্ত বাসে ডাকাতি হয়। আহতদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ আবদুল্লাহ আল মামুন (২৭) কে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গুলিবিদ্ধ অপরজনসহ মারধর ও ছুরিকাগাতে আহতরা কক্সবাজারের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে চলে যাওয়ায় নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। মামুন টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের পানছড়ি গ্রামের এজাহার আহমদের ছেলে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাসের চালক, হেলপার ও সুপারভাইজারকে থানায় আনা হয়েছে।
 
জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে চট্টগ্রামের সিনেমা প্যালেস থেকে ৩৩ যাত্রী নিয়ে টেকনাফগামী সৌদিয়া পরিবহনের একটি বাস (চট্টমেট্রো-ব-১১-১১২৫) ছাড়ে। পরে কর্ণফুলি নতুন ব্রিজ এলাকা থেকে লুঙ্গি পরিহিত ব্যাগ নিয়ে ৭ যাত্রী উঠে। 
 
বাসটি রাত সাড়ে তিনটার দিকে মহাসড়কের চকরিয়ার ফাঁসিয়াখালী ঢালায় পৌছালে ডাকাতরা অস্ত্রের মুখে চালককে জিন্মি করে চালকের আসনে বসে এক ডাকাত গাড়ি চালাতে থাকে। অপর ডাকাত দল চলন্ত বাসে দেশীয় তৈরী কাটা বন্দুক ও চাপাতি ও ছোরার ভয় দেখিয়ে সব যাত্রীর মোবাইল ও নগদ টাকা কেড়ে নেয়। পরে বাসটি খুটাখালী ইউনিয়নের বহলতলী এলাকায় দাঁড়িয়ে ডাকাত দল পালিয়ে যায়। 
 
পরে বাসটির চালক গাড়ি চালিয়ে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আহতদের ভর্তি করেন। গুলিবিদ্ধ দুইজনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়।
 
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বলেন, ডাকাত কবলিত বেশ কয়েকজন যাত্রী থানায় এসে ঘটনাটি জনিয়েছে। যাত্রীদের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
 
বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন
 

আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর