শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৫:৪৪
প্রিন্ট করুন printer

বোয়ালমারীতে সাবেক দুই চেয়ারম্যানের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ১৫

বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি

বোয়ালমারীতে সাবেক দুই চেয়ারম্যানের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ১৫
সংঘর্ষের সময়ে ভাংচুর করা একটি বসতঘর

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের সাবেক দুই ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থকদের মধ্যে শেখর ও দূর্গাপুর গ্রামে দফায়-দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত শনিবার (৫ ডিসেম্বর) ও রবিবার (৬ ডিসেম্বর) এ সংঘর্ষে উভয় পক্ষের প্রায় ১৫ জন আহত হয়েছেন।

সংঘর্ষ চলাকালীন উভয় পক্ষের ২৫-৩০টি বাড়িতে ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। পরে আজ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ফরিদপুরের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মধুখালী সার্কেল) আনিসুজ্জামান।

ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়, ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও শেখর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ ও শেখর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান রইসুল ইসলাম পলাশের সমর্থকদের মধ্যে শনিবার দুপুরে প্রথম দফা সংঘর্ষ বাধে। দু'পক্ষের শতাধিক মানুষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপে ৫/৬ জন আহত ও প্রায় ১০টি বসত-বাড়িতে ভাংচুর-লুটপাট হয়। 

একপর্যায়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এর জের ধরে আজ রবিবার সকালে ঘোষণা দিয়েই দু'পক্ষের প্রায় ৫ শতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময়ও ব্যাপক ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়াসহ ইট-পাটকেল নিক্ষেপের মধ্যদিয়ে সংঘর্ষ চলাকালে নারী-পুরুষ সহ প্রায় ১০ ব্যক্তি আহত ও ১৫/২০ টি বাড়িতে ভাংচুর-লুটপাটের ঘটনা ঘটে।

হামলায় গুরুতর আহত বাবলু মিয়া (৪০), শিমুল মোল্যা (৩৫), বিলাশ মিয়া (২৫) ও মোর্শেদা বেগমকে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

বোয়ালমারী থানার ওসি (তদন্ত) মো. আবুল খায়ের মিয়া বলেন, ঘটনাস্থল থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ পর্যন্ত কোনো পক্ষ থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়নি।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর