শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৪:০৭
আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৪:২৬
প্রিন্ট করুন printer

সেই শিশুকে ২৩ ঘণ্টা পর উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

সেই শিশুকে ২৩ ঘণ্টা পর উদ্ধার

ঢাকায় এক চিকিৎসকের স্ত্রীর নির্যাতনের শিকার হয়ে বরিশালের উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কপপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন শিশু নিপা বাড়ৈ নিখোঁজ হওয়ার ২৩ ঘণ্টা পর তাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

শনিবার ভোর ৪ টার দিকে পার্শ্ববর্তী আগৈলঝাড়া উপজেলার আশোয়ার গ্রামের জনৈক বিমলের বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উজিরপুর মডেল থানার ওসি জিয়াউল আহসান। 

তিনি জানান, ওই শিশুটির কাকা পরিচয়দানকারী তপন বাড়ৈর মামা শ্বশুড় বিমলের বাড়ি থেকে নিপা বাড়ৈকে উদ্ধার করা হয়। শিশুটিকে যথাযথ চিকিৎসা না দিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নিয়ে যাওয়ার কারণ খতিয়ে দেখছে পুলিশ। 

নিপা বাড়ৈ (১১) উজিরপুরের জামবাড়ি এলাকার ননী বাড়ৈর মেয়ে। তার বাবা একজন মানসিক প্রতিবন্ধী। তার মা ২ বছর আগে অন্যত্র বিয়ে করে। ২ বোন ও এক ভাইয়ের মধ্যে নিপা মেঝ। 

অভাবের সংসারে বেঁচে থাকার জন্য গত ৬ মাস আগে ঢাকার জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালের অর্থোপেডিক ও ট্রমা বিশেষজ্ঞ ডা. সিএইএস রবিনের শ্যামলীর বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ শুরু করে নিপা। এরপর বিভিন্ন সময় চিকিৎকের স্ত্রী রাখি দাস নানা অজুহাতে তার উপর শারীরিক নির্যাতন করতো। অব্যাহত নির্যাতনে সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে নির্যাতনকারী লোক মারফত গত বুধবার সন্ধ্যায় তাকে ঢাকা থেকে উজিরপুরের জামবাড়ি তার গ্রামের বাড়ির কাছে একটি দোকানের সামনে ফেলে যায়। পুলিশ তাকে উদ্ধার করে ওই রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরদিন বৃহস্পতিবার রাতেই তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে তার স্বজনরা। কিন্তু শিশুটি অসুস্থ থাকায় চিকিৎসকরা তাকে ছাড়পত্র দিতে রাজী হচ্ছিলেন না। শুক্রবার ভোররাতে শিশুটিকে নিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে লাপাত্তা হয় তার স্বজনরা। এ ঘটনায় শুক্রবার সকাল ১১টায় উজিরপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন উজিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. শামসুদ্দোহা তৌহিদ। নিখোঁজের ২৩ ঘণ্টা পর এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। বর্তমানে নির্যাতিত শিশুটি পুলিশ হেফাজতে রয়েছে বলে জানিয়েছেন উজিরপুর থানার ওসি। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দী  


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর