শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:৪০
প্রিন্ট করুন printer

পরকীয়া প্রেমের প্রতিবাদ করায় গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

পরকীয়া প্রেমের প্রতিবাদ করায় গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ
ছেলের সাথে রুমা আক্তার।

পরকীয়া প্রেমের প্রতিবাদ করায় স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের নির্যাতনে গৃহবধূ রুমা আক্তারকে (২৪) হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গৃহবধূর স্বজনদের দাবি, পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর রুমার মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার চালিয়েছে তারা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের সলিং মোড় এলাকায় গৃহবধূর স্বামীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রুমা আক্তার একই ইউনিয়নের পাশের সিংদিঘী গ্রামের আব্দুর রহমানের মেয়ে। স্বামী ইমরুল হাসান আয়নাল (৩৩) সলিং মোড় এলাকার নজর আলীর ছেলে। তাদের সংসারে ইফতেখার হাসান রুহান (৭)  নামে এক ছেলে রয়েছে।

রুমার ভাই ইমরান হাসান জানান, পারিবারিকভাবে প্রায় ৯ বছর আগে ইমরুল হাসানের সাথে তার বোনের বিয়ে হয়। বিয়ের তিন বছর পর একটি মেয়ের সাথে সম্পর্কের কথা জানতে পারে স্ত্রী রুমা আক্তার। এ নিয়ে উভয় পরিবারের লোকজন বসে মীমাংসা করে দেয় এবং ওই মেয়ের সাথে কোনো ধরনের যোগাযোগ করবে না বলে প্রতিশ্রুতি দেয় স্বামী ইমরুল।

বিয়ের আগে থেকেই ওই মেয়ের সাথে আয়নালের সম্পর্ক ছিল। এ নিয়ে প্রায়ই তাদের মাঝে ঝগড়া-বিবাদ লেগেই থাকতো। গত ৬ এপ্রিল ইমরুলের জন্মদিন উপলক্ষে তার প্রেমিকা মুঠোফোনে জন্মদিনের শুভেচ্ছা পাঠায়। এ নিয়ে মঙ্গলবার বিকেলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পুনরায় কথা কাটাকাটি হলে স্বামী ইমরুলসহ তার পরিবারের লোকজন রুমাকে মারধর করে। একপর্যায়ে রুমার মৃত্যু হলে তার মুখে বিষ ঢেলে স্বামীসহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে স্বজনরা এসে রুমার লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয় বলেও জানান তিনি।

শ্রীপুর থানার মাওনা পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল্লাহ জানান, সুরতহাল রিপোর্টে নিহত গৃহবধূর শরীরের কোথাও আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তবে লাশের গায়ে বিষের গন্ধ পাওয়া গেছে। প্রাথমিক তদন্তে গৃহবধূ বিষপানে আত্মহত্যা করেছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা!

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর