শিরোনাম
প্রকাশ : ৪ মে, ২০২১ ২১:৫৯
প্রিন্ট করুন printer

সবজির বাগানে গাঁজা চাষ

সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:

সবজির বাগানে গাঁজা চাষ

সিদ্ধিরগঞ্জে শাক-সবজির চাষের আড়ালে গাঁজা চাষের খবর পাওয়া গেছে। এলাকাবাসী মতে সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন এসও রোড এলাকার সুস্তিপুর মাঠে বিআইডব্লিউটিএ’র জায়গায় শাক-সবজির আড়ালে গাঁজার চাষ করছেন স্থানীয় আলমগীর ও জাহাঙ্গীর নামে দুই ভাই। তাদের বিরুদ্ধে মাদক বিরোধী আইনে একাধিক মামলাও রয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিশাল জায়গা জুড়ে আলাদা আলাদা সীমানায় অসংখ্য শাক-সবজির বাগান রয়েছে। সেখানে বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজির চাষ হচ্ছে। পুরো বাগানটি সবুজে ছেয়ে আছে। এর মধ্যেই জাহাঙ্গীর ও আলমগীর ছোট্ট একটি অংশে পাট শাক, পুঁই শাক সহ নানান ধরনের শাক ও সবজির চাষ করেছে। এর এক পাশে ছোট একটি বাঁশের খুঁটিকে ভর করে প্রায় ৩ ফুটের মত লম্বা বড় একটি গাঁজা গাছ বেড়ে উঠেছে। বাতাসে যেন গাঁজা গাছ হেলে না পড়ে সেজন্য দেওয়া হয়েছে বাঁশের খুঁটি। গাছ লম্বায় বড় হয়েছে প্রায় ৩ ফুট।

খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে মুহুর্তেই নারী-পুরুষের ভিড় জমে সবজির বাগানটির পাশে। স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ মহিউদ্দিন সানি বলেন, অনেক আগ থেকেই আলমগীর ও জাহাঙ্গীর এখানে শাক-সবজির চাষ করে। আমরা এলাকাবাসী এমন কর্মকান্ডে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

বাংলাদেশ ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশ্রাফ উদ্দিনের অফিসের পাশে গতকালও (৩ মে) সমপরিমানের একটি গাঁজা গাছ পাওয়া গেছে। বিষয়টি থানায় জানানো হলে পুলিশ এসে গাঁছটি উঠিয়ে ধ্বংস করেছে। আশ্রাফ উদ্দিন বলেন, এলাকায় গাঁজা গাছের বিস্তৃতি দেখা যাচ্ছে। এতে সাধারণ মানুষ বিচলিত। এ বিষয়ে প্রশাসনিক সুষ্ঠু হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। রাজনৈতিক দলের ছত্রছায়ায় স্থানীয় এক নেতার লোকজন এ কাজে জড়িত বলে অভিযোগ আশ্রাফ উদ্দিনের।

এলাকাবাসী জানান, বাগানটি বিআইডব্লিউটিএ’র জায়গা। স্থানীয়রা নিজেদের মত করে জায়গা দখল করে বাগান করেছে। গাঁজা গাছ চাষের জমিটিতে আলমগীর ও জাহাঙ্গীর নামে দুজন বাগান করতো। তাদের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মাদক মামলা আছে।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান জানান, একই এলাকায় দুইদিনে গাঁছা গাছ পাওয়ার বিষয়টি অবগত হয়েছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। 

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 

এই বিভাগের আরও খবর