শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ মে, ২০২১ ১৮:৪৬
আপডেট : ২১ মে, ২০২১ ২১:২৯
প্রিন্ট করুন printer

ধর্ষণের লজ্জা সইতে না পেরে বিষপানে শিশুর মৃত্যু

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

ধর্ষণের লজ্জা সইতে না পেরে বিষপানে শিশুর মৃত্যু
Google News

নেত্রকোনার মদনে বিষপান করে ঝুমা আক্তার (১১) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার বেলা ১২ টার দিকে মদন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশুটির মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় শিশুটির মায়ের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ প্রতিবেশী এক কিশোরকে আটক করেছে। 

শিশুটির মায়ের দাবি প্রতিবেশী এক কিশোর (১৪) গত কদিন আগে তাকে সড়কে পেয়ে মুখ চেপে ধরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেছে। যে কারনে লোক লজ্জায় সে কীটনাশক জাতীয় বিষ খেয়েছে। 

মৃত ঝুমা উপজেলার গোবিন্দশ্রী ইউনিয়নের মনিকা বিডাবাড়ি গ্রামের লিটন মিয়ার মেয়ে। সে গোবিন্দশ্রী মনিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিলো। ঝুমার বাবার দু'জন স্ত্রী থাকায় সে তার আপন মায়ের সাথে আলাদা বসবাস করতো।

শুক্রবার সকালে বাড়ির বাইরে থেকে এসে শরীর খারাপ লাগা এবং মাথা ঘুরিয়ে বাড়ির সামনে পড়ে যায়। পরে তাকে দ্রুত মদন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় শিশুটির মা সহ প্রতিবেশীরা। সেখানে বেলা ১২ টার দিকে মারা যায় শিশুটি। 

এ ব্যাপারে মদন থানার ওসি তদন্ত উজ্জ্বল কান্তি সরকার জানান, লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে কোন ঘটনা রয়েছে কিনা। তবে এ ঘটনায় আটক কিশোরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। 

এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার মো.  আকবর আলী মুনসী জানান, শিশুটির মা লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। ঘটনার সঠিক তদন্তের জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) একেএম মনিরুল ইসলামকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।

মদন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক কাজী বুশরা আমিনা জানান, শিশুটিকে হাসপাতালে আনার আগেই মারা গেছে। কীটনাশক পান করেছিলো।  

শিশুটির আপন মা আলপিনা আক্তার জানান, গত মঙ্গলবার রাতে পৌনে নয়টার দিকে আমার মেয়ে দোকানে কয়েল আনতে যায়। এ সময় ওই কিশোর আমার মেয়েকে জোর করে ধর্ষণ করে। পরে রাতে এসেই ঝুমা বিষয়টি জানায়। পরদিন আবার আমার মেয়েকে কু প্রস্তাব দেয়। 
আমি লোকলজ্জার ভয়ে কাউকে জানাইনি। এসব সইতে না পেরে আমার মেয়ে বিষ খেয়েছে। আমি এর বিচার চাই।


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ

এই বিভাগের আরও খবর