মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

সালিশে মা-মেয়েকে জুতাপেটা, ইউপি মেম্বারসহ অভিযুক্তরা অধরা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :

সালিশে মা-মেয়েকে জুতাপেটা, ইউপি মেম্বারসহ অভিযুক্তরা অধরা

কেরোয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. আরিফ হোসেন

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে এক সালিশী বেঠকে ইউপি সদস্য কর্তৃক মা ও তার স্কুলে পড়ুয়া মেয়েকে লাঞ্চিত (জুতাপেটা ও মারধর) করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করার পরও এখনো (মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টা) পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। বর্তমানে মেম্বারের লোকজনের চাপের মুখে পরিবারটি নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে বলে জানা গেছে।  

জানা যায়, স্থানীয় উত্তর-পূর্ব কেরোয়া এলাকায় কালা শাহ ফকির বাড়ির এক কিশোরী পার্শ্ববর্তী রামগঞ্জ এলাকায় এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। বিষয়টি তার পরিবার জানলেও ওই কিশোরীর মতের বিরুদ্ধে অন্য আরেকটি ছেলের সাথে তার বিয়ের দিন ধার্য করা হয়। কিন্তু এর আগেই প্রেমিকের হাত ধরে লাপাত্তা হয় সে। পরে তার লাপাত্তার ঘটনায় পার্শ্ববর্তী সৌদি প্রবাসীর ৮ম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক মাদ্রাসা ছাত্রী জড়িত রয়েছে অভিযোগ তুলে গত রবিবার সন্ধ্যায় গ্রাম্য সালিশী বৈঠক বসানো হয়। 

বৈঠকে কেরোয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. আরিফ হোসেন, মো: সুমনসহ স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক চলাকালীন সময়ে হঠাৎ ইউপি সদস্য আরিফ উত্তেজিত হয়ে উপস্থিত এলাকাবাসীর সামনে নিজ পায়ের জুতা খুলে ওই ছাত্রীকে জুতাপেটা করেন। এসময় তার মা সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী আপত্তি জানালে তাকেও একই জুতা দিয়ে উপর্যুপরি মারতে থাকে। একপর্যায়ে এলাকার লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে সরিয়ে দেয়। পরবর্তীতে আইনের আশ্রয় নিতে চাইলে তাদেরকে ঘরেই অবরুদ্ধ করে রাখে আরিফের লোকজন। খবর পেয়ে রায়পুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ওই দিনই ভুক্তভোগী মা বাদী হয়ে ইউপি সদস্য আরিফ হোসেনকে অভিযুক্ত করে ১১ জনের নামে থানায় অভিযোগ করেন। এরপর থেকেই গা-ঢাকা দিয়েছে ইউপি সদস্য, তার মুঠোফোনও বন্ধ রয়েছে। বর্তমানে মামলা না করতে ওই পরিবারকে ভয়ভীতি দিয়ে জিম্মী করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী পরিবার। বর্তমানে লোকলজ্জার ভয়ে বাড়ির বাইরে বের হতে পারছে না বলে জানান তারা।

ভুক্তভোগী মা ও মেয়ে জানান, থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর ইউপি সদস্য আরিফ ও তার লোকজন থানায় না যাওয়ার জন্য বলেছে। বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তারা।

রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল জলিল বলেন, ভুক্তভোগীদের অভিযোগ পেয়েছি। এখনো কাউকে আটক করা হয়নি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর