শিরোনাম
১ ডিসেম্বর, ২০২২ ২০:৫৮

শিশু সন্তানকে হত্যার দায়ে মায়ের যাবজ্জীবন

দিনাজপুর প্রতিনিধি:

শিশু সন্তানকে হত্যার দায়ে মায়ের যাবজ্জীবন

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলায় শিশু কন্যাকে শ্বাসরোধে হত্যা মামলায় মা সাদিয়া আক্তার আশাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার দিনাজপুর জেলা ও দায়রা জজ মো. যাবিদ হোসেন এ আদেশ দেন। একই সঙ্গে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক মাসের সশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

দন্ডপ্রাপ্ত সাদিয়া আক্তার আশা(২৯) পার্বতীপুর উপজেলার হরিরামপুর গ্রামের আনসার ব্যাটালিয়নে কর্মরত এরশাদ আলীর স্ত্রী। রায় ঘোষণাকালে আদালতে উপস্থিত ছিলেন তিনি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, এরশাদ আলী ও সাদিয়া আক্তার দম্পতির মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলছিল। ২০১৭ সালের ৬ জুলাই আয়েশা আক্তার শাশুড়িসহ তার শিশু কন্যা মাইমুনা আক্তারকে (৬) রাতের খাওয়া খাবার খাইয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। পরে গভীর রাতে কোনো এক সময় মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন তিনি। এ সময় ব্লেড দিয়ে নিজের হাত ও পায়ের রগ কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন আয়েশা। পরবর্তীতে রাত সাড়ে ৩টার দিকে তার শাশুড়ি সাহরি খাওয়ার জন্য ঘুম থেকে ওঠেন। এ সময় তিনি সাদিয়াকে ডাকতে শুরু করেন। কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে পরিবারের অন্য সদস্যরা মিলে দরজা ভেঙে ঘরে ঢোকেন। পরে তারা সাদিয়াকে রক্তাক্ত অবস্থায় এবং মাইমুনার মরদেহ উদ্ধার করেন। ঘটনার পর সাদিয়াকে পার্বতীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়। এ ঘটনার পরদিন মাইমুনার চাচা ইব্রাহীম আলী বাদী হয়ে পার্বতীপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে সাদিয়া সুস্থ হওয়ার পর পুলিশের কাছে হত্যার দায় স্বীকার করেন। দীর্ঘদিন ধরে চলা এই মামলার সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে বৃহস্পতিবার এ রায় ঘোষণা করেছেন আদালত।

কোট ইন্সপেক্টর মনিরুজ্জামান এর সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দীর্ঘসময় ধরে চলা মামলাটির সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে বৃহস্পতিবার এ রায় ঘোষণা করেছেন আদালত। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. রবিউল ইসলাম রবি। আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. খলিলুর রহমান ও খন্দকার মাহতাব উদ্দিন।

বিডি প্রতিদিন/এএম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর