শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ১০:০১

'ছপাক' ছবিতে দীপিকার 'মালতি' হয়ে ওঠার ভিডিও ফাঁস

অনলাইন ডেস্ক

'ছপাক' ছবিতে দীপিকার 'মালতি' হয়ে ওঠার ভিডিও ফাঁস

কুঞ্চিত ত্বক, বিবর্ণ মুখমণ্ডল। অ্যাসিড হামলায় সৌন্দর্য এক নিমেষে ম্লান করে গেছে। ঝলসে গেছে মুখের ৭০ শতাংশ। যে চেহারা দেখলে বাচ্চারা আঁতকে ওঠে। চিৎকার জুড়ে দেয়। এমনকি, আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজের মুখ দেখে নিজেই আঁতকে ওঠে সে। অ্যাসিড আক্রান্ত যোদ্ধা লক্ষ্মী আগরওয়ালের ভূমিকায় দীপিকা পাড়ুকোন এভাবেই মালতি বেশে ধরা দিয়েছিলেন ক্যামেরারা সামনে। যার জন্য তাকে আশ্রয় নিতে হয়েছিল প্রস্থেটিক মেকআপের।

বক্স অফিসে ‘ছপাক’ সেভাবে সাফল্যের মুখ না দেখতে পারলেও দীপিকার অভিনয় কিন্তু মন কেড়েছে দর্শকদের। ‘ছপাক’ ছবি তার ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা ছবির তকমা দিয়েছেন সিনেবিশ্লেষকদের একাংশ। মালতি রূপে ক্যামেরার সামনে ধরা দিতে অবশ্য দীপিকাকেও কম কাঠখড় পোড়াতে হয়নি। পোক্ত হোমওয়ার্ক করতে অ্যাসিড আক্রান্ত যোদ্ধাদের সঙ্গে সময় কাটাতে হয়েছে রীতিমতো। শুটিংয়ের দিনগুলিতেও মেকআপ ভ্যানে দীপিকাকে বসে থাকতে হত ঘণ্টার পর ঘণ্টা।

অ্যাসিড আক্রান্ত মহিলার লুক নিয়ে আসা মোটেই সহজ ছিল না। তবে সেই অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন জনপ্রিয় প্রস্থেটিক মেকআপ শিল্পী ক্লোভার উটন। তার হাতের জাদুতে বদলে দিয়েছেন দীপিকার চেহারা। মালতির লুক আনতে মেকআপে সময় লেগে যেত প্রায় ৫ ঘণ্টা। আর পরিচালক মেঘনা যে বেশ পারফেকশনিস্ট, তা অল্পবিস্তর বলিউড ইন্ডাস্ট্রির সবাই জানেন। তাই মেঘনার বক্তব্য ছিল, “আমি চেয়েছিলাম দীপিকার সঙ্গে যদি এধরনের ঘটনা ঘটতো, তাহলে ওকে যেমন দেখতে লাগত, ঠিক তেমনই লাগুক ওকে।”

একটা সময়ে দীপিকার নাক-মুখ ঢেকে দেওয়া হয়েছিল প্লাস্টার অফ প্যারিসে। আর দীপিকার তো ক্লসট্রোফোবিয়া রয়েছে। অতঃপর একসময়ে অভিনেত্রীর দম বন্ধ হয়ে যাওয়ার জোগাড় হয়েছিল। কীভাবে দীপিকা মালতি হয়ে উঠতেন, সেই ভিডিও সম্প্রতি প্রকাশ করেছেন প্রযোজনা সংস্থা ফক্স স্টার। দেখে নিন সেই ভিডিও।

 

বিডি-প্রতিদিন/ সিফাত আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য