Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
প্রকাশ : বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৫৯

ভোলায় সুরেশকে উষ্ণ অভ্যর্থনা তোফায়েলের

নতুন উচ্চতায় যাবে ভারত বাংলাদেশ সম্পর্ক

ভোলা প্রতিনিধি

নতুন উচ্চতায় যাবে ভারত বাংলাদেশ সম্পর্ক
বক্তব্য রাখেন ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রী সুরেশ প্রভাকর প্রভু ও বাংলাদেশের বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ —বাংলাদেশ প্রতিদিন

ভারতের কেন্দ্রীয় বাণিজ্য, শিল্প এবং বেসামরিক বিমানমন্ত্রী শ্রী সুরেশ প্রভু মুগ্ধ বাংলাদেশের বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের আতিথেয়তায়। উষ্ণ আতিথেয়তার জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি সুন্দর দেশ। এ দেশের গ্রামীণ অর্থনীতিতে যে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে তা নিজ চোখে না দেখলে বোঝানো যাবে না। আমি সত্যিই অভিভূত। তিনি বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একে অপরকে সাহায্য করার চেষ্টা করছেন। বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের অনেক শহরের ট্রেন লাইন রয়েছে। ঢাকা জয়দেবপুর রেল লাইন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  গতকাল দুপুরে ভোলার বাংলাবাজার ফাতেমা খানম কলেজ অডিটরিয়ামে এক মতবিনিময়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আজ ঢাকায় তিনি রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন।  বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের আমন্ত্রণে সুরেশ প্রভু এক দিনের সফরে ভোলায় আসেন। বেলা ১১টায় ভোলা পৌঁছে প্রথমে বাংলাবাজারে তোফায়েল আহমেদ প্রতিষ্ঠিত স্বাধীনতা জাদুঘর, ফাতেমা খানম বৃদ্ধাশ্রম এবং নির্মাণাধীন আজাহার ফাতেমা খানম মেডিকেল কলেজ পরিদর্শন করেন। ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন জানায়, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রীকে জাদুঘরে রাখা বিভিন্ন নথি, দলিল ও ছবি দেখান। এ সময় বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, মুজিব-ইন্দিরার নেতৃত্বে ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের যে ভিত রচিত হয়েছিল হাসিনা-মোদির নেতৃত্বে সেই সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় ও শক্তিশালী হয়েছে। পরে দুপুরে সুরেশ প্রভু ভোলা জেলা চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন।  সুরেশ প্রভু বলেন, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের আগে বঙ্গবন্ধু ভাষার জন্য ’৫২ সালেও আন্দোলন সংগ্রাম করেছিলেন। তিনি ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে বাংলাদেশ-ভারত ঐতিহাসিক মৈত্রী চুক্তি করেছিলেন। বাংলাদেশ ও ভারত দুটি ভিন্ন দেশ হলেও আমাদের ভাষা, সংস্কৃতির অনেক মিল রয়েছে। সভায় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি একজন মহান নেতা। তিনি আমাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী দুই দেশের উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করছেন। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু দেশ পুনর্গঠনের কাজ শূন্যহাতে শুরু করেছিলেন। বাজেট ছিল খুবই সীমিত। কিন্তু বর্তমানে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার সরকারের আমলে রিজার্ভ ৩০ বিলিয়ন ডলার এবং বাজেট আড়াই লাখ কোটি টাকা। স্বাধীনতা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে আমরা অঙ্গীকারাবদ্ধ। তিনি আরও বলেন, তিন মাস পরে আমাদের জাতীয় নির্বাচন। এ নির্বাচন নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে। ভোলা জেলা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি ভোলা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মমিন টুলুর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মিসেস উমা প্রভু, ক্যাপ্টেন (অব.) তাজুল ইসলাম এমপি, বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর, স্কয়ার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তপন চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম ও বিজিএমইএ নেতা ও ক্রোনি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আসলাম সানী। এ ছাড়া ভোলার জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম ছিদ্দিকি, পুলিশ সুপার মোকতার হোসেন, বাংলাবাজার ফাতেমা খানম কলেজের সভাপতি মইনুল হোসেন বিপ্লবসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। পাঁচ দিনের সফরে সোমবার ঢাকায় এসেছেন ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রী সুরেশ প্রভু।


আপনার মন্তব্য