Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:১১

বাবা-মার সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে লাশ জায়ান

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাবা-মার সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে লাশ জায়ান

চাঁদের মতো ফুটফুটে শিশু জায়ান। মায়াকাড়া চোখ আর হাসি হাসি মুখের আট বছর বয়সী জায়ানকে দেখলেই আদর করতে মন চাইবে। বাবা-মায়ের সঙ্গে বেড়াতে গিয়েছিল শ্রীলঙ্কায়। রবিবার সকালে হোটেল রুমে সে কাপড়-চোপড় পরে তৈরি হয়ে বলল, ‘চলনা বাবা, নাশ্তা করে আসি।’ মশিউল হক চৌধুরী ছেলেকে বললেন, ‘হ্যাঁ হ্যাঁ চল।’ বাবার হাতের আঙ্গুল ধরে হোটেলের নিচ তলায় রেস্তোরাঁয় নেমে এলো সে। তখন সেখানে খুব ভিড়। হাতে প্লেট নিয়ে প্রাতরাশের জন্য বোর্ডারদের দীর্ঘ লাইন। জায়ান আর তার বাবা আস্তে আস্তে সামনের দিকে এগোতে থাকেন। হঠাৎ প্রচ  বিস্ফোরণ। ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন পুরো রেস্তোরাঁ। চারদিকে আর্তজনের চিৎকার কাতরধ্বনি। ছিটকে পড়লেন মশিউল, তার দেহ রক্তাক্ত। জায়ানকে তিনি দেখতে পাচ্ছিলেন না। সন্তানকে ডাকতে থাকেন তিনি, ‘জায়ান, জায়ান’। কিন্তু কেথায় জায়ান! কোনো সাড়াই পাচ্ছিলেন না। অবশেষে জায়ানকে পাওয়া গেল। সে পড়ে আছে মেঝেতে, রক্তাক্ত প্রাণহীন। মশিউল বিশ্বাস করতে পারছিলেন না। যে সন্তান কয়েক মুহূর্ত আগেও তার হাতের আঙ্গুল আঁকড়ে ধরেছিল, সে আর কোনোদিন বাবা বলে ডাকবে না।

জায়ান চৌধুরী আওয়ামী লীগ সভাপতিম লীর সদস্য ও শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপির দৌহিত্র। পড়ত রাজধানী ঢাকার ইংরেজি মিডিয়াম স্কুল সানবীমে। রবিবার শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডের প্রার্থনার সময় গির্জা ও অভিজাত হোটেল এবং কলম্বোর পার্শ্ববর্তী এলাকায় সন্ত্রাসীরা আটটি জায়গায় আত্মঘাতী সিরিজ বোমা হামলা চালায়। এ রকম একটি হামলায় জায়ানের মৃত্যু হয়েছে। সেই মর্মান্তিক ঘটনার খবর যখন ঢাকায় আসে তখন বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা পবিত্র শবেবরাত পালনের পর্যায়ে ইবাদত-বন্দেগি শুরু করছিলেন। অপেক্ষা করছিলেন রাতের জিকির-আসগারের।

মশিউল হক চৌধুরী ও স্ত্রী মা শেখ আমেনা সুলতানা সোনিয়া অবকাশ উদযাপনের জন্য সম্প্রতি শ্রীলঙ্কায় গিয়েছিলেন। সঙ্গে ছিল দুই ছেলে জায়ান ও জোহান। তারা কলম্বোর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে ওঠেন। বিস্ফোরণের সময় সোনিয়া ছোট ছেলে জোহানের সঙ্গে হোটেলের কামরায় ছিলেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শেখ সোনিয়ার ওয়ালে দেখা যায়, জায়ানের সঙ্গে সোনিয়া ও মশিউল যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দর্শনীয় স্থানে রয়েছেন। এসব ছবিতে মা-বাবার সঙ্গে মধ্যমণি হয়ে রয়েছে জায়ান। এসব ছবি এখন শুধুই স্মৃতি।

জায়ানের লাশ শ্রীলঙ্কা থেকে বুধবার বিমানযোগে আসছে। বিমানটি বেলা ১১টার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছবে। সেখান থেকে লাশ সরাসরি জায়ানের নানা শেখ সেলিমের বনানীর বাসভবনে নেওয়া হবে। বাদ আসর জানাজা শেষে তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে।


আপনার মন্তব্য