প্রকাশ : সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪৬

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ও দুই সন্তান হত্যা

রংপুর প্রতিনিধি

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ও দুই সন্তান হত্যা

রংপুরে নেশাগ্রস্ত স্বামীর হাতে খুন হয়েছেন গর্ভবতী স্ত্রীসহ দুই সন্তান। গতকাল দুপুরে নগরীর বাহার কাছনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রিকশাচালক আবদুর রাজ্জাক নেশাগ্রস্ত অবস্থায় তার স্ত্রীকে গলা কেটে এবং দুই শিশুসন্তানকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে সে নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এ ঘটনায় পুলিশ রাজ্জাককে গ্রেফতার করে চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নগরীর বাহার কাছনা কাকিনা ব্রিজসংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা রিকশাচালক আবদুর রাজ্জাক। সকালে স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়ার এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে স্ত্রী তাসনিয়া আক্তার রত্নার (৩৫) গলা কাটে। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই রত্নার মৃত্যু হয়। রত্না সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। এরপর তার দেড় বছর বয়সী শিশুসন্তান রেহান ও আট মাসের শিশুকে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা করে। আবদুর রাজ্জাক প্রতিনিয়ত নেশাগ্রস্ত হয়ে স্ত্রীকে মারপিট করত বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। ঘটনার পর রাজ্জাক নিজেই আত্মহত্যার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে কোতোয়ালি, মাহিগঞ্জ ও হারাগাছ থানার পুলিশ এবং র?াব-১৩ এর সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন। ঘটনাস্থল থেকে আবদুর রাজ্জাককে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান কোতোয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুর রশিদ। তিনি জানান, দুপুরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জের ধরে এ ঘটনা ঘটতে পারে। মৃত রত্নার খালাতো বোন শাহনওয়াজ বেগম জানান, ১০ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। এরই মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় রাজ্জাক স্ত্রীকে তালাক দিয়ে অন্যত্র বিয়ে করেন। পরে তাদের মধ্যে সমঝোতা হওয়ায় প্রথম স্ত্রী রত্নাকে নিয়ে রাজ্জাক বাহার কাছনা এলাকায় বছরখানেক আগে বাড়ি করে সেখানে বসবাস শুরু করেন।


আপনার মন্তব্য