শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩৩

ধর্ষণ থেকে বাঁচতে অটোরিকশা থেকে লাফিয়ে হাত ভাঙল ছাত্রীর

কুমিল্লা প্রতিনিধি

ধর্ষণ থেকে বাঁচতে অটোরিকশা থেকে লাফিয়ে হাত ভাঙল ছাত্রীর

ধর্ষণ থেকে বাঁচতে অটোরিকশা থেকে লাফিয়ে পড়ে হাত ভাঙল কুমিল্লার কলেজের এক ছাত্রী।

সিএনজি অটোরিকশায় তুলে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়। গতকাল কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাখরাবাদ-পান্নারপুল সড়কের আড়ালিয়া নামক এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় স্থানীয়রা দুজনকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দেয়। আটক করা হয় মুরাদনগর উপজেলার দারোরা গ্রামের রেনু মিয়ার ছেলে ইসমাঈল (৩৫) ও দারোরা গ্রামের দক্ষিণ পুষ্কনীপাড় গ্রামের নায়েব আলীর ছেলে মোবারক হোসেন মোবাকে (৩২)।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, বুধবার কলেজছাত্রীটি দারোরা বাজার থেকে দেবিদ্বার মহিলা কলেজে যাওয়ার লক্ষ্যে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিল। কিছুক্ষণ পর আটক মোবা সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে কলেজছাত্রীর সামনে থামিয়ে জানতে চান কোথায় যাবেন। দেবিদ্বার মহিলা কলেজের কথা বললে মোবা ছাত্রীটিকে গন্তব্যে নামিয়ে দেওয়ার কথা বলে গাড়িতে উঠতে বলেন। কিছুক্ষণ গাড়ি চলার পর যাত্রী বেশে থাকা ইসমাঈল কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় মেয়েটি নিজেকে রক্ষা করতে ইসমাঈলের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করে। এর মধ্যে আড়ালিয়া নামক স্থানে ছাত্রীটি সিএনজি অটোরিকশা থেকে লাফ দেয়। এতে তার হাত ভেঙে যায়। বিষয়টি কয়েকজনের নজরে পড়ায় তারা এসে অটোরিকশা আটক করে। পরে মোবা ও ইসমাঈলকে ধরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। তারা উভয়েই পেশায় সিএনজি অটোরিকশার চালক। মুরাদনগর থানার ওসি কে এম মঞ্জুর আলম বলেন, দারোরা সিএনজি অটোরিকশা স্ট্যান্ড থেকে চালক মোবারক ও তার সহযোগী ইসমাঈল কলেজ ছাত্রীটিকে অটোরিকশাতে তোলে। আড়ালিয়া নামক স্থানে ছাত্রীটির চেঁচামেচিতে স্থানীয়রা গাড়িটি আটক করে দুই বখাটেকে মারধর করে পুলিশে দেয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর