শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৫৯

রাজনীতি আর খেলাধুলা দুটোই আমার এবাদত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

রাজনীতি আর খেলাধুলা দুটোই আমার এবাদত

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেছেন, তিনি রাজনৈতিক কর্মী, মাঠের কর্মী। মাঠপর্যায়ে কাজ করতে করতে তিনি এ পর্যায়ে এসেছেন। চসিক নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরীকে জয়ী করতে সর্বাত্মক চেষ্টা করবেন জানিয়ে মেয়র বলেন, আমার কোনো অভিমান, ক্ষোভ বা রাগ নেই। আ জ ম নাছির চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকও। রেজাউল মনোনীত হওয়ার পর গতকাল দুপুরে প্রথমবারের মতো তিনি চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করছিলেন। এ সময় তিনি তার জীবনের নানা বিষয়ে খোলামেলা কথাবার্তা বলেন। তিনি বলেন, রাজনীতি ও খেলাধুলা দুটিকেই তিনি এবাদত হিসেবে নিয়েছেন। আ জ ম নাছির বলেন, তার বড় প্রাপ্তি হচ্ছে সততা। স্বচ্ছতার মধ্যে চসিকের দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি বলেন, চট্টগ্রামবাসী আমায় এত ভালোবাসেন এটা আমি জানতাম না। আমি জানি মানুষের সঙ্গে আমার সম্পৃক্ততা আছে। আমাকে কাজপাগল বলা যায়। আমার বাবাও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। খেলাধুলা আমার রক্তে মিশে আছে। আমার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে- আমি মানুষকে ভালোবাসার চেষ্টা করি। মানুষের আর্থিক অবস্থা আমার কাছে বিবেচ্য নয়। মেয়র বলেন, অনেকবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছিলাম। চট্টগ্রাম কলেজকে শিবিরমুক্ত করতে গিয়ে নির্মমভাবে আক্রান্ত হয়েছিলাম। নির্যাতন ছিল নিত্যদিনের সঙ্গী। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী আমাকে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দিয়েছেন। এরপর মেয়র পদে কাজ করারও সুযোগ দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, চরম দুঃসময়ে রাজনীতি শুরু করেছিলাম। বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ড আমাকে নাড়া দিয়েছিল। ’৭৫-এর পর সর্বপ্রথম জানুয়ারি মাসে চার-পাঁচজন ছেলে একত্রিত হয়ে মিছিল করেছি। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান দিয়ে চন্দনপুরা দিয়ে চলে গেছিলাম। সঙ্গে সঙ্গে সেনাবাহিনী এসে পুরো এলাকা ঘিরে ফেলেছিল। মেয়র নাছির বলেন, তিনি একটা বিষয়ে খুবই কষ্ট পেয়েছেন। যেখানে তিনি বঙ্গবন্ধু হত্যার পর চট্টগ্রাম কলেজে প্রতিবাদ মিছিল করেছেন, বঙ্গবন্ধুর খুনি কর্নেল ফারুকের সভা প- করেছেন এবং শহরে তাদের কোথাও কোনো সভা-সমাবেশ করতে দেননি, অথচ খুনির কোনো এক ভাইয়ের ছবি ফেসবুকে দিয়ে তার বিরুদ্ধে চরম অপপ্রচার ও মিথ্যাচার করা হয়েছে। তিনি বলেন, যেই ছবিটি দেখানো হয়েছে, সেখানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আমার দুঃসময়ে পাশে থাকা আকরাম খানের আহ্বানে অক্সিজেন এলাকায় একটি দোকান উদ্বোধনে গিয়েছিলাম। অপপ্রচারকারীরা যে বঙ্গবন্ধুর খুনির ভাইয়ের ছবি দাবি করছে তাকে আমি চিনিও না, কোনো দিন দেখিওনি। হয়তো আকরাম খান বলতে পারবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর