শিরোনাম
প্রকাশ : ৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ১২:০৪
প্রিন্ট করুন printer

রাজাকারদের মদতে ১৯৭১-এ গণহত্যাই ছিল পাক-সেনার প্রধান লক্ষ্য

অনলাইন ডেস্ক

রাজাকারদের মদতে ১৯৭১-এ গণহত্যাই ছিল পাক-সেনার প্রধান লক্ষ্য
ফাইল ছবি

গণহত্যাই ছিল পাক-সেনার প্রধান লক্ষ্য। নিজের কানে শুনেছেন সেকথা। তারপর বিশ্ববাসীর কাছে ১৯৭১-এ গণহত্যার বিবরণ তুলে ধরেছিলেন পাকিস্তানি সাংবাদিক আন্থনি মাসকারেনহাস। 

তার প্রতিবেদন পড়েই ইন্দিরা গান্ধি থেকে শুরু করে গােটা দুনিয়া আঁচ পান পাকিস্তানি বর্বরতার। বাস্তবে অবশ্য পাক-বর্বরতা ছিলো আরও ভয়ঙ্কর। ৩০ লাখ মানুষকে খুন বা ৩ লাখেরও বেশি নারীকে ধষণের শিকার হতে হয় পাক-সেনার মানবতা বিরােধী অভিযানে। সেইসব গোপন করে সেনাবাহিনীর জয়গান গাইতেই নিয়ে আসা হয়েছিল অ্যান্থনিদের। বাকিরা নিরব থাকলেও অ্যান্থনি তুলে ধরেছিলেন আসল ঘটনা। আদর্শ সাংবাদিকতার মূর্ত প্রতিক অ্যান্থনিকে নিয়েই বিবিসি প্রকাশ করেছে বিশেষ প্রতিবেদন। বিবিসির সাংবাদিক মার্ক ডামমেট কথা বলেছেন অ্যান্থনির স্ত্রী ইভন মাসকারেহানসের সঙ্গেও।

১৩ জুন, ১৯৭১ লন্ডনের সানডে টাইমস-এ প্রতিবেদনের হেডলাইন্স ছিল জেনোসাইড। আর বিবিসি বলছে এই প্রতিবেদনই ইতিহাস পরিবর্তনের বড় ভূমিকা নেয়। মাত্র ২৪ বছরের তরুণ আবদুল বারিকে পাক-সেনা যেভাবে হত্যা করা হয়েছে। তার প্রকৃত বিবরণ ছবির মতাে উঠে আসে অ্যান্থনির কলামে। উঠে আসে আরও বহু। গণহত্যা ও পাক-সেনা বর্বরতার গ্রাউন্ড রিপোর্টিং। সানডে টাআমস-এ প্রকাশি জেনোসাইডকেই বিবিসি বলছে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে প্রভাবশালী সাংবাদিকতার নিদর্শন। ১৯৭১-এ। পাকিস্তান সেনা নিষ্ঠুরতার ছবি গােটা দুনিয়া এই প্রতিবেদন থেকেই জানতে পারেন। এই প্রতিবেদনই বাংলাদেশ রাষ্ট্রগঠনকে তরান্বিত করতে সাহায্য করে।

বিবিসি-র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাক-সেনার আক্রমণে যে লাখ লাখ মানুষ খুন হয়েছেন বা নারী-শিশুরা ধর্ষিতা হচ্ছেন, এটা গােটা দুনিয়ারই জানা ছিলােনা। বাংলাদেশ সরকারের হিসাবে মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষ শহিদ হয়েছেন। অথচ বিশ্ববাসী বিষয়টি জানতেই পারেনি। বন্দুকের নল দিয়ে পূর্ব পাকিস্তানকে শায়েস্তা করে চেয়েছিল পাকিস্তান। কিন্তু সেই কৌশল শেষ পর্যন্ত সফল হয়নি। কারণ ভারতের সার্বিক সহযােগিতায় আর মুক্তিযােদ্ধাদের আত্মত্যাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বের দক্ষতায় বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে।

পাকিস্তানে অ্যান্থনিকে সাংবাদিক হিসাবে সকলেই বেশ শ্রদ্ধা করতেন। ৭১-এর ২৫ মার্চ অপারেশন সার্চ লাইট শুরুর আগে বিদেশি সাংবাদিকদের পূর্ব পাকিস্তান থেকে বার করে দিয়েছিল পাক-সেনা। আর নিজেদের ঢাক পেটানাের জন্য করাচি থেকে উড়িয়ে আনা হয়েছিল জনা আটেক সাংবাদিককে। তাঁদের বলা হয়েছিল, সেনাকর্তারা যা বলবেন তাই লিখতে হবে। সামরিক শাসনে এর বেশি কিছু লেখার ক্ষমতাও তাদের ছিলো না। তাই পাকসাংবাদিক দলের সামনেই চলে গণহত্যা। বহু ঘটনারই স্বাক্ষী তারা। কিন্তু দেশে ফিরে গিয়ে সেনা বাহিনীর শিখিয়ে দেওয়া কথাই প্রকাশিত হতে থাকে পাকিস্তানি গণমাধ্যমে। ৮ সাংবাদিকের মধ্যে ৭ জনই ছিলেন সেনাকর্তাদের বিশ্বস্ত। ব্যতিক্রম একজন। একটি শব্দও লিখতে পারেননি অ্যান্থনি। কারণ তিনি জানতেন, ঘটনার বিবরণ লিখলেই তাঁর পক্ষে পাকিস্তানে বেঁচে থাকা অসম্ভব হবে। লন্ডনবে বসে বিবিসি-র কাছে ইভনের স্ত্রী বলেন, 'আমি অ্যান্থনিকে এতােটা ভেঙে পড়তে দেখিনি। পূর্ব পাকিস্তান থেকে এসে সে এতােটাই আবেগপ্রবণ হয়েছিল, আমি বোঝাতে পারবােনা। প্রচন্ড শােক আর হতাশায় ভুগছিল। বলেছিল, গণহত্যার কথা লিখতে না পারলে আমার হাত দিয়ে কোনও লেখাই আর বার হবেনা।

বােনের বাড়ি যাওয়ার নাম করে অ্যান্থনি পাকিস্তানি বর্বরতার স্মৃতি সঙ্গে নিয়ে উড়ে যান লন্ডন। সেখানে গিয়ে তিনি সরাসরি দ্য সানডে টাইমস-এর এডিটর ইভনের সঙ্গে দেখা করেন। বর্ণনা করেন পাক-বাহিনীর বর্বরতার। গণহত্যার রােহর্ষক বিবরণ তুলে ধরেন অ্যান্থনি। কিন্তু নিরাপত্তার কথা ভেবে প্রতিবেদন প্রকাশের আগে পরিবারেপ সকলে লন্ডনে উড়িয়ে আনার প্রস্তাব দেন ইভন। সেইমতো সকলে লন্ডন পৌঁছালে প্রকাশিত হয় জেনােসাইড। এই একটি প্রতিবেদনই গােটা বিশ্ব শিহরিত হয়ে ওঠে। ধরা পড়ে যায় আল-বদর ও রাজাকারদের সঙ্গে নিয়ে পাক সেনার গণহত্যার ছবি। উঠে আসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে বিভিন্ন গণহত্যা ও বর্বরতায় পাক-সেনার নিষ্ঠুরতার কথা। অ্যান্থনির সামনে নিরীহ মানুষদের হত্যা করা হয়েছে ঠান্ডা মাথায়। অগণিত মা-বােনের আর্তনাদ ফুটে ওঠে সেই প্রতিবেদনে। একজন পাকিস্তানি নাগরিকের কলামেই উঠে আসে বর্বরতার প্রকৃত বিবরণ। সেইসঙ্গে বাঙালি মুক্তিযােদ্ধাদের বীরত্বও ধরা পড়ে জেনােসাইড-এ।

সানডে টাইমস-এর এডিটর ইভান তাঁর স্মৃতিকথায় তুলে ধরেছেন অ্যান্থনির কাছ থেকে শােনা বাংলাদেশে পাক-গণহত্যার বহু অপ্রকাশিত নিষ্ঠুরতার কথা। অ্যান্থনি সেই ঘটনাগুলগুলি তাঁকে বলেছিলেন। ঘর বন্ধ করে আগুনে পুড়িয়ে মারা হয়েছে নিরীহ গ্রামবাসীদের। আবার লাই দিয়ে দাঁড় করিয়ে গুলি করে মারা হয়েছে অগণিত মানুষকে। নারী-শিশু কেউই বাদ যাননি পাক-বর্বরতার হাত থেকে। পাক-সেনাদের স্থানীয় এজেন্টরা ইচ্ছে মতাে মানুষ খুনে মদত দিয়ে গিয়েছে। ইভানের কথায়, অ্যান্থনি গণহত্যা চলাকালে বহুবার শুনেছে সেনা কর্তারা বলছেন, বন্দুকের নলই নাকি মেটাতে পারে পূর্ব পাকিস্তানের সমস্যা। গণহত্যাই নাকি মুক্তিযােদ্ধাদের বাগে আনার একমাত্র পথ। তাই গণহত্যা চলতেই থাকে।
অ্যান্থনির স্ত্রী ইভনের এখনও মনে আছে দেশ ছাড়ার স্মৃতি। স্বামীর টেলিগ্রাম পেয়েই সন্তানদের নিয়ে আফগানিস্তান হয়ে উড়ে আসেন লন্ডন। সেখানে নতুন করে জীবন যাত্রা শুরু। কিন্তু সবসময়ই তাঁর মধ্যে আতঙ্ক কাজ করতো। এমনকী, লন্ডনের বহু মানুষ তাঁদের সন্দেহের চোখে দেখতেন। অনেকে মনে করতে তাঁর স্বামী অন্য দেশের চর। কিন্তু ইভন নিশ্চিত, সততার সঙ্গে কখনও আপোষ করেননি অ্যান্থনি। চিরকালই ছিলেন বস্তুনিষ্ঠ আদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই পাকিস্তানিদের বর্বরতায় আর ৭ জন সাংবাদিকের মতো তিনিও তােতাপাখির মতো শেখানো বুলি আওরাতে পারনেননি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রকাশ করেছেন বর্বরতার ধারাবিবরণী। সততার সঙ্গে তুলে ধরেছেন অপারেশন সার্চলাইটের নৃশংসতার কথা। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর আতিথেয়তায় থেকেও নিদের আদর্শের সঙ্গে বিন্দুমাত্র আপোষ করেননি অ্যান্থনি। ইভােনার কথায়, বরং সেনাকর্তাদের সঙ্গে বন্ধুত্বের ছলনায় তুলে এনেছেন গণহত্যার প্রকৃত রূপ। পাকিস্তানি দালালদের অনেকেই অ্যান্থনিকে বিশ্বাসঘাতক বলেও বর্ণা করে থাকেন। মানতে নারাজ ইভন। তাঁর মতে নিজের পেশার প্রতি দায়বদ্ধতার কারণেই অ্যান্থনিকে এটা করতে হয়েছিল। চোখের সামনে নিরীহমানুষের ওপর নৃশংস অত্যাচার নিরবে মেনে নেওয়ার মতো ক্ষমতা তার ছিলো না। তাই তিনি প্রকাশ করেছেন দুনিয়ার ভয়ঙ্করতম গণহত্যার বিবরণ।

পাকিস্তানের নাগরিকদেরও একটা অংশ কিন্তু অ্যান্থনির ভূমিকাকে সমর্থন করেছিলেন। লন্ডনে বসবাস করার সময়ও তাঁর সঙ্গে সুসম্পর্ক ছিল পাকিস্তানের অনেকেই। তাই তাে তিনি লন্ডনে বসেই পাকিস্তানি পারমানবিক শক্তি নিয়ে প্রথম প্রতিবেদন প্রকাশ করতে সক্ষম হন।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২২:৩১
প্রিন্ট করুন printer

ফিলিস্তিনিদের নির্মাণাধীন মসজিদসহ বেশ কয়েকটি স্থাপনা ধ্বংস করল ইসরায়েল

অনলাইন ডেস্ক

ফিলিস্তিনিদের নির্মাণাধীন মসজিদসহ বেশ কয়েকটি স্থাপনা ধ্বংস করল ইসরায়েল

ইহুদিবাদী ইসরায়েল এবার ফিলিস্তিনের পশ্চিমে একটি নির্মাণাধীন মসজিদসহ বেশ কয়েকটি স্থাপনা ধ্বংস করেছে। ইসরাইলের কয়েকটি সামরিক যান ইয়াতা শহরের পূর্বদিকের এলাকাটি ঘিরে ফেলে আজ বুধবার সকালে এ তাণ্ডব চালায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। খবর আনদলু এজেন্সির।

গণমাধ্যমটি বলছে, দখলদার ইসরায়েল ১৪০ বর্গমিটার আয়তনের নির্মাণাধীন মসজিদটি ধ্বংস করে দেয়। একজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ইহুদিবাদী ইসরায়েল মসজিদের কাছের একটি বিদ্যালয়ের কূপও ধ্বংস করে দিয়েছে। ঐ কূপের পানি ব্যবহার করতো পাশের একটি বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২২:০৯
আপডেট : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২২:১৩
প্রিন্ট করুন printer

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব্লিনকেন

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব্লিনকেন
অ্যান্টনি ব্লিনকেন।

যুক্তরাষ্ট্রে জো বাইডেন প্রশাসনের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন অ্যান্টনি ব্লিনকেন। মঙ্গলবার মার্কিন কংগ্রেসে উচ্চকক্ষের ভোটাভুটিতে দেশটির ৭১তম পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে তার নিয়োগ চূড়ান্ত হয়েছে। খবর সিএনএনের

এক টুইট বার্তায় ব্লিনকেন তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ১৯৯৩ সালে স্টেট ডিপার্টমেন্টে আমি কাজ শুরু করেছি। আজ এটা আমার জীবনের জন্য সম্মানের বিষয় যে, ৭১তম সেক্রেটারি অফব স্টেট হিসেবে আমি এই বিভাগের নারী-পুরুষদের নেতৃত্ব দেবো।

এর আগে ওবামা প্রশাসনে সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সহকারী জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার দায়িত্ব সামলেছেন ৫৮ বছর বয়সী ব্লিনকেন। বারাক ওবামা প্রশাসনের সময়েও দুই মেয়াদে ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন জো বাইডেন।

এদিকে, তাকে স্বাগত জানিয়েছে ঢাকার মার্কিন দূতাবাস। বুধবার ঢাকার মার্কিন দূতাবাস জানায়, ৭১তম সেক্রেটারি অব স্টেট হিসেবে অ্যান্টনি ব্লিনকেনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তাকে স্বাগতম।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:১৪
আপডেট : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:৪৬
প্রিন্ট করুন printer

কাবা শরীফ ও চাঁদের বিরল দৃশ্য দেখা যাবে কাল

অনলাইন ডেস্ক

কাবা শরীফ ও চাঁদের বিরল দৃশ্য দেখা যাবে কাল
ফাইল ছবি

সৌদি আরবের বাসিন্দারা আগামীকাল বৃহস্পতিবার এক বিরল দৃশ্যের সাক্ষী থাকবেন। এদিন পবিত্র কাবা শরীফ ও পূর্ণ চাঁদ একইসঙ্গে দেখা যাবে।  এ খবর জানিয়েছেন অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সায়েন্স সোসাইটির প্রধান প্রকৌশলী মাজিদ আবু জাহরার। 

মিডল ইস্ট মনিটর ও সৌদি গেজেটসহ বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে এসেছে, বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) মক্কায় অবস্থিত কাবা শরীফ ও চাঁদ একসঙ্গে দেখা যাবে। এদিন চন্দ্র মাসের চৌদ্দতম দিন থাকবে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, ২০২১ সালে সৌদি আরবে এটাই সর্বপ্রথম চাঞ্চল্যকর ঘটনা হিসেবে গণ্য হতে যাচ্ছে। এদিন কাবা প্রান্তরে চাঁদকে উপভোগ করার জন্য সৌদি আরবের সব শ্রেণি-পেশার মানুষ অনেক ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। 

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৮ সালের ২৬ নভেম্বর ও ২৪ ডিসেম্বরে একইভাবে কাবা শরীফ ও  চাঁদকে এভাবে দেখা গিয়েছিল। সর্বশেষ গত বছরের মার্চেও এমন দৃশ্য দেখা যায়। এভাবে প্রতি বছরই দেখা যায়। যা মসজিদুল হারামের ডান দিকে অবস্থান করে।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:১৩
প্রিন্ট করুন printer

স্বামীর মোবাইলে থাকা নিজের পুরনো ছবি চিনতে পারলেন না স্ত্রী, অতঃপর...

অনলাইন ডেস্ক

স্বামীর মোবাইলে থাকা নিজের পুরনো ছবি চিনতে পারলেন না স্ত্রী, অতঃপর...
প্রতীকী ছবি

সম্পর্কের সবচেয়ে বড় শত্রু সন্দেহ। ছোট ছোট অবিশ্বাসের পাথর জমা হতে হতে কখন যে সন্দেহের কঠিন পর্বতে পরিণত হয়, কেউ বলতে পারে না, যার ফলও হয় মারাত্মক। যেমন নিছক সন্দেহের বশে একটি ছবি দেখে স্বামীকে ছুরি দিয়ে কোপালেন মেক্সিকোর লিওনোরা নামের এক নারী। পরে জানা গেল, ছবিটি আদতে তারই যৌবন বয়সের ছিল। ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে হতবাক পুলিশও।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সন্দেহের বশেই স্বামীর মোবাইল নিয়মিত চেক করতে মেক্সিকোর ওই নারী। আচমকা সেখানে অল্প বয়সের এক নারীর সঙ্গে স্বামীর ছবি দেখতে পান। এতেই ক্ষেপে ওঠেন। রান্নাঘরের ছুরি নিয়েই স্বামী জুয়ানের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন। এলোপাতাড়ি কোপ দিতে থাকেন।

পরে রক্তাক্ত অবস্থাতে কোনোভাবে স্ত্রীর হাত থেকে ছুরি ছিনিয়ে নিতে সক্ষম হন জুয়ান। তারপরই প্রকাশ্যে আসে আসল সত্য। জুয়ানই লিওনোরাকে জানান, ছবির নারী আসলে তিনিই। ছবিটি সেই সময়ের যখন তারা প্রথম প্রথম প্রেম করতে শুরু করেছিলেন।

জুয়ানের কথা প্রথমে কিছুতেই বিশ্বাস করতে চাননি লিওনোরা। কিন্তু ঠান্ডা মাথায় কথা বলে তাকে ক্ষান্ত করেন জুয়ান। ইতিমধ্যে তাদের চিৎকার শুনে পুলিশে খবর দিয়েছিলেন এক প্রতিবেশী। সেই খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় পুলিশ। জুয়ানকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। আর লিওনোরাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশের এক প্রশ্নে জুয়ান জানান, পুরনো ছবিটি একটু এডিট করে ফোনে স্টোর করেছিলেন তিনি। সেই সময় এমনিতেই লিওনোরা অনেকটা রোগা ছিলেন। তাই নিজের ছবি নিজেই চিনতে পারেননি। স্ত্রীর বিরুদ্ধে জুয়ান এখনো পর্যন্ত কোনো অভিযোগ করেননি বলেই খবর। তবে লিওনোরা মানসিক রোগে আক্রান্ত কি না, তা জানতে মনোবিদের সাহায্য নিচ্ছে পুলিশ।

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৮:০০
প্রিন্ট করুন printer

ইরানে ইসরায়েলের হামলার পরিকল্পনা নিয়ে কি বলছে তেহরান

অনলাইন ডেস্ক

ইরানে ইসরায়েলের হামলার পরিকল্পনা নিয়ে কি বলছে তেহরান
প্রতীকী ছবি

ইরানে হামলার শক্তি দখলদার ইসরায়েলের নেই। তাদের এ ধরণের কোনো পরিকল্পনাও নেই বলে জানিয়েছেন ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্টের দপ্তরের প্রধান মাহমুদ ওয়ায়েজি। তিনি বলেন, ইরানসহ এই অঞ্চলের মানুষ দখলদার ইসরায়েলের কর্মকর্তাদের বক্তব্যের ভাষা সম্পর্কে অবহিত। তারা আসলে এ ধরণের বক্তব্যের মাধ্যমে মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ চালাতে চায়। মনস্তাত্ত্বিক সুবিধা নিতে চায়।

আজ বুধবার ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর প্রধানের হুমকির জবাবে এ কথা বলেছেন তিনি। ওয়ায়েজি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন সরকার দখলদার ইসরায়েলের মাধ্যমে প্রভাবিত না হয়ে অন্য দেশগুলোর সরকারের মতো স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নেবে বলে আশা করা যায়। যাইহোক ইসরায়েলের বর্তমান হুমকি কেবলি তাদের মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধের অংশ।

এর আগে, গতকাল মঙ্গলবার বর্ণবাদী ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল আবিব কোহাবি দাবি করেছেন, তিনি প্রতিরক্ষা বাহিনীকে ইরানে হামলার ব্যাপারে বিদ্যমান পরিকল্পনার পাশাপাশি বাড়তি অনেকগুলো অভিযান পরিকল্পনা তৈরির নির্দেশনা দিয়েছেন। এর পরই ইরান ইসরায়েলের এই দাবি নিয়ে মুখ খুললো। সূত্র : পার্সটুডে।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এই বিভাগের আরও খবর