শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল, ২০২১ ১১:৩৪
আপডেট : ১৫ এপ্রিল, ২০২১ ১১:৩৫
প্রিন্ট করুন printer

ভারতের পাটনা হাসপাতালে বিতর্কিত কাণ্ড

করোনায় 'মৃত' ব্যক্তির দেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর, অতঃপর পাল্টে গেল চিত্র!

অনলাইন ডেস্ক

করোনায় 'মৃত' ব্যক্তির দেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর, অতঃপর পাল্টে গেল চিত্র!
প্রতীকী ছবি

'ডেথ সার্টিফিকেট' ছাপা হয়ে গিয়েছিল। মৃতদেহ পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছিল ভারতের পাটনা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। মরদেহ নিয়ে শ্মশানে পৌঁছে গিয়েছিলেন আত্মীয়স্বজন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে সন্দেহ স্বামীর মুখ দেখতে চান কবিতা দেবী। এরপরই মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেলেন চুন্নু কুমার নামের ওই ব্যক্তি। এমন কাণ্ডের পর প্রশ্নের মুখে পাটনা মেডিকেল কলেজ।

পাটনার বাসিন্দা বছর ৪০ বছরের চুন্নু কুমার। মাথায় রক্তক্ষরণের কারণে গত শুক্রবার তাকে পাটনা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে তার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তবে চুন্নু কুমারের ভাই ব্রিজ বিহারির দাবি, শনিবার পর্যন্ত তারা জানতেন তার বড় ভালই আছেন। কিন্তু রবিবার সকালে  হাসপাতাল থেকে জানানো হয় তার ভাই মারা গিয়েছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কালো প্যাকেটে মোড়ানো দেহ আমাদের হাতে তুলে দেয়। আমাদের মুখ দেখেত দেওয়া হয়নি। দেহ নিয়ে গ্রামে যেতেও নিষেধ করা হয়।

কিন্তু শেষকৃত্যের সময় মৃতদেহের উচ্চতা নিয়ে সন্দেহ হয় চুন্নু কুমারের স্ত্রীর। স্বামীর মুখ দেখতে চান কবিতা দেবী। প্লাস্টিক খুলে মুখ দেখার পরেই সকলে হতভম্ব হয়ে পড়েন। সেই মৃতদেহ চুন্নু কুমারের ছিল না। এরপরই দ্রুত পাটনা মেডিকেল কলেজে যান প্রত্যেকে। ডেথ সার্টিফিকেট হাতে নিয়ে হট্টগোল শুরু করেন। পরে তারা কোভিড-১৯ ওয়ার্ডে গিয়ে দেখেন, চুন্নু কুমার বেঁচে আছেন। এমনকি আগের চেয়ে তার শারীরিক অবস্থারও উন্নতি হয়েছে।


সূত্র: দ্যা প্রিন্ট, জাগরণ।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ 

এই বিভাগের আরও খবর