শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ মে, ২০২১ ১১:৩৮
প্রিন্ট করুন printer

চৌম্বকক্ষেত্রের ব্যবহারে ভাসমান যান, বদলে যাবে বিশ্বের পরিবহন ব্যবস্থা

অনলাইন ডেস্ক

চৌম্বকক্ষেত্রের ব্যবহারে ভাসমান যান, বদলে যাবে বিশ্বের পরিবহন ব্যবস্থা
লাস ভেগাসের পরীক্ষা কেন্দ্রে যানবাহটির টিউব, এই টিউবের ভেতরেই চৌম্বকক্ষেত্রের ব্যবহারে ভেসে চলে যাত্রীবাহী পড। ছবি: রয়টার্স
Google News

ঘণ্টায় ৭৫০ মাইল গতিবেগের যাত্রীবাহী পড তৈরির নতুন প্রযুক্তি বিনির্মাণের কাজ করছে ভার্জিন হাইপারলুপ ও রিচার্ড ব্রানসনের ভার্জিন গ্রুপ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেভাডা প্রদেশের লাস ভেগাসের উত্তরের মরুভূমিতে পাহাড়ের পাদদেশে এর পরীক্ষা চালানো হচ্ছে। উচ্চগতির এ শক্তি সাশ্রয়ী পরিবহন ব্যবস্থা বিশ্বের পরিবহন ব্যবস্থাকে আমূলে বদলে দিতে পারে।

দেখা যাচ্ছে, একটি টিউব বা নলের মধ্য দিয়ে পডের চলাচল। এ চলাচলের ফলে এ ব্যবস্থায় ঘর্ষণজনিত বাধা থাকে না। টিউবের মধ্যে পডটি প্রবেশের পর টিউবের দেয়াল ও পডের গাত্রে বিপরীতমুখী চৌম্বকক্ষেত্র তৈরি হয়। ফলে পডটি টিউবের কোনো অংশ স্পর্শ না করে বাতাসে ভেসে ওঠে, সেই অবস্থাতেই অত্যন্ত দ্রুত বেগে ও কোনো শব্দ ছাড়াই আধুনিক এ যানটি চলাচল করতে পারে। 

ভার্জিন হাইপারলুপের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী জশ গিগেল বলেন, ‌এটি চলা শুরু হতেই মনে হচ্ছিল বিমান আকাশে উড়াল দিচ্ছে। 

অত্যাধুনিক এ পডটি বর্তমানে ২৮ জন যাত্রী পরিবহনের উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে, স্বল্প বা দীর্ঘ দূরত্বে যাতায়াত ও মালামাল বহনের উপযোগী করেও বিশেষায়িত পড নির্মাণ সম্ভব। 

এখনো এটি প্রাথমিক পর্যায়ে। ২০২৭ সাল নাগাদ বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরুর কথা ভাবছেন ভার্জিন হাইপারলুপের জশ গিগেল। তিনি জানান, গাড়ি, ট্রেন ও প্লেনের মতোই ১০০ বছরের মধ্যে পরিবহন ব্যবস্থায় বিপ্লব ঘটানো প্রথম যানবাহন হতে চলেছে এটি। 

সূত্র: রয়টার্স 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ 

 

 


 

এই বিভাগের আরও খবর