২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১০:৩০

৪৩ বছর পর পুরনো কাগজ খুঁজে পেয়েই বাজিমাত, শেয়ারের দাম উঠেছে ১৬৭৯ কোটি টাকা!

অনলাইন ডেস্ক

৪৩ বছর পর পুরনো কাগজ খুঁজে পেয়েই বাজিমাত, শেয়ারের দাম উঠেছে ১৬৭৯ কোটি টাকা!

বাবু জর্জ ভালাভি (বামে)

নাম তার বাবু জর্জ ভালাভি। ভারতের কেরালা রাজ্যের কোচির বাসিন্দা। বিগত ৪৩ বছর আগে দেশটির এক সংস্থার সাড়ে তিন হাজার শেয়ার কিনেছিলেন তিনি। সেই শেয়ারের বর্তমান মূল্য দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৪৪৮ কোটি রুপি, বাংলাদেশি মুদ্রায় এক হাজার ৬৭৯ কোটি ৪৪ লাখ টাকা।

বাবুর দাবি, হিসাব অনুযায়ী ওই সংস্থার ২.৮%  শেয়ার এখন তারই হাতে। একই সঙ্গে বাবুর অভিযোগ, এই বিপুল পরিমাণ টাকা দিতে অস্বীকার করছে সংস্থাটি।

বাবুর দাবি, ৪৩ বছর আগে তিনি এবং তার চার আত্মীয় মিলে মেবার অয়েল অ্যান্ড জেনারেল মিলস লিমিটেড-এর সাড়ে তিন হাজার শেয়ার কিনেছিলেন। বাবু তার পুরনো কাগজপত্র ঘেঁটে দেখার সময় তার বিনিয়োগের বেশ কিছু কাগজ খুঁজে পান। উদয়পুরের ওই সংস্থা থেকে কেনা শেয়ারের নথি নিয়ে খোঁজ নেওয়া শুরু করেন। তখনই জানতে পারেন তিনি যে শেয়ার কিনেছিলেন, তার বর্তমান মূল্য দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৪৪৮ কোটি রুপি। বাবু এটাও জানতে পারেন তিনি যে সময় শেয়ার কিনেছিলেন সেই সময় উদয়পুরের ওই সংস্থা শেয়ার বাজারের নথিভুক্ত সংস্থা ছিল না। কিন্তু বর্তমানে সংস্থার নাম বদলে পিআই ইন্ডাস্ট্রিজ হয়েছে। একই সঙ্গে সেটা শেয়ার বাজারের নথিভুক্ত সংস্থার তালিকাতেও ঢুকেছে।

২০১৫ সালে বাবুর ছেলে যখন শেয়ারের কাগজপত্র দেখেন তিনি সেই নথি নিয়ে শেয়ারের এক এজেন্টের সঙ্গে যোগাযোগ করেন উপায় বের করার জন্য। ওই এজেন্ট সংস্থার সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন। বাবুরা তখন ওই সংস্থায় গেলে তাদের বলা হয় ওই শেয়ার ১৯৮৯ সালে অন্য ব্যক্তিদের হস্তান্তরিত করে দেওয়া হয়েছে। এই কথা শুনে স্তম্ভিত হয়ে যান। আসল নথি তার কাছে অথচ সেই শেয়ার হস্তান্তর হয়ে গেল কীভাবে!

বাবুর অভিযোগ, অবৈধভাবে তার শেয়ার অন্যদের কাছে বেচে দিয়েছে পিআই ইন্ডাস্ট্রিজ। বাবু বিষয়টি নিয়ে সেবি’র দ্বারস্থ হয়েছেন। সূত্র: আনন্দবাজার

বিডি প্রতিদিন/কালাম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর