শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ আগস্ট, ২০২০ ১৪:১০
আপডেট : ৭ আগস্ট, ২০২০ ১৫:০৪

নদীতে অবৈধ বালু উত্তোলণকারীদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী

মাদারীপুর প্রতিনিধি:

নদীতে অবৈধ বালু উত্তোলণকারীদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, নদীতে অবৈধ বালু উত্তোলণকারীদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। প্রতিটি জেলায় জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে একটি শক্তিশালী কমিটি রয়েছে। তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে, নদীতে যারাই অবৈধভাবে বালু উত্তোলণ করবে তাদের কোনরকম ছাড় নেই। সে যত বড়ই হোক না কেন।’ 

আজ শুক্রবার সকালে মাদারীপুর শহররক্ষা বাঁধের ধ্বস এলাকায় পরিদর্শণ শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন। উপমন্ত্রী এসময় মাদারীপুর শহররক্ষা বাঁধ স্থায়ী নির্মাণের জন্যে একটি টেকনিক্যাল কমিটি গঠণ করে প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ের প্রকল্প হাতে নেয়ার কথাও জানান। 


তিনি আরও বলেন, আমি নদী ভাঙন প্রবন এলাকার মানুষ। আমি নদী ভাঙার কষ্ট বুঝি। আমরা বসতবাড়ি ৬/৭বার ভেঙেছে। নদী ভাঙন রোধে আমরা কাজ করছি। পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেন, ভাঙ্গন কবলিত এলাকায় বাঁধ নির্মাণে জরুরি কাজের চেয়ে স্থায়ী কাজের প্রতি পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় বেশি জোর দিচ্ছে। 

আওয়ামী লীগের সাবেক এই সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা যখন ক্ষমতায় থাকে, দেশের মানুষ তখন শান্তি ও নিরাপদে থাকে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ সকল দূর্যোগ মোকাবিলা করতে সক্ষমতার পরিচয় দিয়েছে। করোনার কারনে আমাদের সাময়িক অসুবিধা হলেও তা কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করছি। বিশ্বের বড় বড় নেতারা যখন হিমশিম খাচ্ছে তখন বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকা সচল রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সঠিক ভাবে নেতৃত্বে দিচ্ছেন বলেই করোনা কালীন কঠিন সময়ে ও বন্যায় দেশের কোনো মানুষ না খেয়ে থাকে নাই। তিনি ক্ষমতায় থাকতে এদেশের কোনো মানুষ না খেয়ে মারা যাবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এ দেশের মানুষের সুখে-দুঃখে সব সময় সব মানুষের পাশে ছিল, আছে ও থাকবে। তার নেতৃত্বে মন্ত্রী পরিষদের সদস্য, এমপি ও আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীরা কাজ করে যাচ্ছে। 

একেএম এনামুল হক শামীম এর আগে মাদারীপুর জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার উদ্যোগে গবীর অসহায়দের মাঝে ত্রাণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। তখন তিনি পৌরসভা সম্মলেন কক্ষে একটি সুধী-সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। 
এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক কেএম আমিনুল হক, ফরিদপুর জোনের প্রধান প্রকৌশলী ওয়াহিদ উদ্দিন চৌধুরী, তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল হেকিম, মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহাবুব হাসান, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে, পৌর মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মাদারীপুর জেলার নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতীম সাহা প্রমুখ। 

 

বিডি-প্রতিদিন/সিফাত আব্দুল্লাহ


বিডি-প্রতিদিন/সিফাত আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর