Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ মার্চ, ২০১৯ ২৩:১০

জিতলেই সেমিফাইনালে বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

জিতলেই সেমিফাইনালে বাংলাদেশ
ভুটানের বিপক্ষে লড়াইয়ের আগে গতকাল হালকা অনুশীলন সেরে নিচ্ছেন সাবিনা, আঁখি, তহুরারা -বাফুফে

স্বপ্নের মিশনে বাংলাদেশের যাত্রা আজ। নেপালের বিরাট নগরীতে অনুষ্ঠিত সিনিয়র সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে সাবিনা-মারিয়ারা প্রথম ম্যাচে নামছে আজ। প্রতিপক্ষ ভুটান। বিকাল সোয়া তিনটায় ম্যাচ শুরু হবে। শুরুতে জয় পেলেই বাংলাদেশের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যাবে। ড্র করলেও সম্ভাবনা থাকবে, তখন আবার সাবিনাদের ড্র করতে হবে নেপালের বিপক্ষে। হারলে তখন আবার গোল পার্থক্য গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে বাংলাদেশ কিংবা ভুটান সেমিতে জায়গা করে নেবে। আজ যদি ভুটানের কাছে হেরে যায়, সেমিতে টিকে থাকতে হলে তখন ১৬ মার্চ নেপালকে হারাতে হবেই। তিন দলের পয়েন্ট তখন সমান হবে। গোল পার্থক্যের বিচারে ‘এ’ গ্রুপ থেকে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হবে।

অনেক হিসেব-নিকেশ করেই ভুটানের বিপক্ষে বাংলাদেশকে আজ লড়তে হবে। তবে ম্যাচে পরিষ্কার ফেবারিট সাবিনারা। মঙ্গলবার উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক নেপালের কাছে ৩-০ গোলে হেরেছে ভুটান। পারফরম্যান্সই বলে আজ জয়ের সম্ভাবনা বাংলাদেশেরই বেশি। তবু সতর্ক কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন। গতকাল তিনি জানান, গতবার রানার্স আপ হলেও এবার আমরা শিরোপা জিততে চাই। তবে ফাইনাল খেলতে হলে তো আগে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হতে হবে। তাই গ্রুপের দুই ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নেপালতো ঘরের মাঠে অবশ্যই শক্তিশালী। ভুটানকেও খাটো করে দেখার উপায় নেই।

২০১৬ সালে বাংলাদেশ পুরুষ জাতীয় দলকে পরাজিত করে ভুটান। যা ফুটবল ইতিহাসে বড় লজ্জাই বলা যায়। বাংলাদেশের মেয়েদের সামনে ভুটান দাঁড়াতে পারছে না। যে কোনো টুর্নামেন্টে তারা বড় ব্যবধানে হারছে। আজও তার ব্যতিক্রম ঘটবে না বলে দেশের ফুটবলপ্রেমিরা আশা করছেন। অধিনায়ক সাবিনা আক্তারও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। জয় দিয়ে আমরা টুর্নামেন্ট শুরু করতে চাই। এতে করে সামনে আমরা উজ্জীবিত হয়েই খেলতে পারব। বিগত টুর্নামেন্টে ভুটানের বিপক্ষে আমরা ভালো খেলেছি। সেই ধারাবাহিকতা নেপালেও ধরে রাখতে চাই। তবু আমরা ভুটান যোগ্য প্রতিপক্ষ ভাবছি। টিকে থাকতে ওরাও মরিয়া হয়ে লড়বে। সুতরাং সেরা খেলাটাই আমাদের খেলতে হবে।

ম্যানেজার আমিরুল ইসলাম বাবু বলেন, ‘ভুটানের বিরুদ্ধে শুধু জয় নয় গোল ব্যবধানের ব্যাপারটা জড়িয়ে আছে। ওরা প্রথম ম্যাচে ৩-০ গোলে হেরেছে নেপালের কাছে। আমাদের চেষ্টা থাকবে কম করে ব্যবধানটা ৪-০ করা।’ বাবুর কথায় পরিষ্কার হয়ে উঠে চেষ্টা থাকবে সেমিফাইনালে ভারতকে এড়ানো। কেননা গতবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত। এবারেও টুর্নামেন্টে তারা টপ ফেবারিট। বড় কোনো অঘটন না ঘটলে বি গ্রুপ থেকে তাদের সেমিফাইনাল নিশ্চিত বলা যায়। গতকাল মালদ্বীপকে ৬-০ গোলে হারিয়ে ভারত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন অনেকটা নিশ্চিত করে ফেলেছে।

ভারত যদি গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন আর বাংলাদেশ রানার্স আপ হলে তখন সেমিফাইনালে দুই দলই মুখোমুখি হবে। তাই আজ যদি বাংলাদেশ ৪-০ ব্যবধানে জিতে তখন পরবর্তী ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে ড্র করলেই গোল পার্থক্যে বাংলাদেশ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হবে। কোচ ছোটন অবশ্য এ যুক্তির সঙ্গে একমত নন। তার কথা মিশন যখন শিরোপা তখন লক্ষ্য একটাই প্রতিটা ম্যাচই জেতা। এখানে প্রতিপক্ষ কারা হবে এ চিন্তা করলে তো ঠান্ডা মাথায় খেলা যাবে না। আশা রাখি যে প্রস্তুতি নিয়ে এসেছি তাতে দেশকে বড় কিছু উপহার দিতে পারব।

গতবার নারী সিনিয়র সাফ চ্যাম্পিয়ন্সশিপে গ্রুপ ও সেমিফাইনালে প্রতিপক্ষদের উড়িয়ে দিলেও ফাইনালে ভারতের কাছে দুর্ভাগ্যক্রমে হেরে যায়। বয়সভিত্তিক সব টুর্নামেন্টে মেয়েদের শিরোপা জিতলেও বাকি আছে মূল সাফই। স্বপ্নের মিশনে যাত্রা আজ। দেখা যাক বাংলাদেশ এবার পারে কি না।


আপনার মন্তব্য