শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:৩৪

এ কেমন শাস্তি!

ক্রীড়া প্রতিবেদক

এ কেমন শাস্তি!

শৃঙ্খলা ভাঙলে খেলোয়াড়রা শাস্তি পাবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু তা যদি আমানবিক হয় তা মেনে নেওয়া যায়? সাঁতার ফেডারেশনের অমানবিক শাস্তির প্রতিবাদ জানিয়ে দেশে ফিরে গেছেন জাপানের কোচ তাকিও ইনোকিক। তারই প্রশিক্ষণে সাফ গেমসের জন্য সাঁতারুরা নিজেদের তৈরি করছিলেন। এখন কোচ চলে যাওয়ায় বিপাকে পড়ে গেছে ফেডারেশন। জাতীয় দলের পাশাপাশি প্রতিভা অন্বেষণের খুদে সাঁতারুরা কমপ্লেক্সে প্রশিক্ষণ করে। অভিযোগ পাওয়া যায় রাত জেগে এসব সাঁতারু ফেসবুকে মেতে থাকেন। তাই প্রশিক্ষণে মনোযোগী হতে পারে না। অভিযুক্ত সাঁতারুদের শাস্তির ব্যবস্থা করেন স্থানীয় কোচরা। প্রচণ্ড গরমের মধ্যে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। এরপর আবার শারীরিক অনুশীলনও চলে। কষ্ট সহ্য করতে না পেরে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যায় শরীফা আক্তার। সঙ্গে সঙ্গে ছুটে আসেন কোচ ইনোকিক। তিনি শরীফাকে হাসপাতালে নেওয়ার অনুরোধ রাখেন।

তার অনুরোধ উপেক্ষা করে কোচরা অট্টহাসি দিয়ে বলেন, ওর কিছুই হয়নি। শরীফা ভান করে পড়ে গেছে। পরে অবশ্য ঠিকই হাসপাতালে নেওয়া হয়। কিন্তু জাপানি কোচ ফেডারেশনের এমন অমানবিক আচরণ মেনে নিতে পারেননি। ক্ষোভে রাগে ঢাকা ছেড়ে চলে যান।


আপনার মন্তব্য