শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ মার্চ, ২০২০ ২৩:২৯

করোনা মোকাবিলা

টাইগারদের তহবিল গঠন

‘হয়তো টাকার অঙ্ক খুব বড় নয়। সংখ্যা যতই ক্ষুদ্র হোক, সবাই যদি একসঙ্গে লড়াইয়ে নামি, তাহলে অবশ্যই করোনাভাইরাসকে হারানো সম্ভব।’

ক্রীড়া প্রতিবেদক

টাইগারদের তহবিল গঠন

শুধু মাঠের লড়াই নয়, মাঠের বাইরের লড়াইয়েও শামিল হচ্ছেন তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাশরাফি বিন মর্তুজারা। বিশ্বসেরা তারকা  লিওনেল মেসি, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, পেপ গার্ডিওলা, জøাটান ইব্রাহিমোভিচ, শহীদ আফ্রিদিদের মতো করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে এগিয়ে আসছেন বাংলাদেশের ২৭ ক্রিকেটার। এসব ক্রিকেটার তাদের বেতনের ৫০ শতাংশ দিয়ে একটি তহবিল গঠন করে আর্থিক সহায়তা করবে বাংলাদেশ সরকারকে। এ ক্রিকেটারদের ১৭ জন বিসিবির বর্তমান চুক্তিভুক্ত এবং বাকি ১০ জন চুক্তির বাইরের। তবে ১০ ক্রিকেটার গত তিনমাস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন। ২৭ ক্রিকেটার সব মিলিয়ে ৩০ লাখ ১৫ হাজার টাকার তহবিল গঠন করেছেন। আয়কর বাদে টাকার পরিমাণ প্রায় ২৬ লাখ।  

মহমারী আকার ধারণ করেছে করোনাভাইরাস। সারা পৃথিবীর ১৭৬ দেশে সর্বশেষ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪ লাখ ৩৫ হাজার ২ জন এবং মৃতের সংখ্যা ১৯ হাজার ৬০৭ জন। বাংলাদেশের এখন পর্যন্ত আক্রান্ত রোগীর ৩৯ এবং মৃতের সংখ্যা ৫। করোনাভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করায় ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। বিসিবি অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করেছে ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগসহ দেশের সবধরনের ক্রিকেট। এমন পরিস্থিতিতে ক্রিকেটাররা এখন সবাই হোম কোয়ারেন্টাইনে। পরিস্থিতি দিন দিন জটিল হচ্ছে। এমন পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ পেতে পৃথিবীর তারকা ক্রীড়াবিদরা আর্থিক সহায়তার ঘোষণা দিচ্ছেন। গতকাল বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা দিলেন। অবশ্য সাকিব আল হাসান, মুশফিক. তামিম, মাশরাফি, শাহরিয়ার নাফিস, নাজমুল হোসেন শান্তরা নানা সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় দেশের জনগণকে সতর্ক করেছেন, করছেন। এবার তহবিল গঠন করেন। এই তহবিল গঠনের অন্যতম উদ্যেক্তা তামিম ইকবাল বলেন, ‘প্রথমে মাশরাফি ভাই আমাকে এমন তহবিল গঠনের বিষয়ে বলেছিলেন। আমিও ভাবছিলাম এমন কিছু করা যায় কি না। ওনার আইডিয়া খুব ভালো লাগে আমার। এরপর আমি সবার সঙ্গে আলোচনা করি। সবাই স্বতঃস্ফূর্তভাবেই সাড়া দেয়।’ ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম সবচেয়ে বেশি অর্থ দিয়েছেন তহবিলে। বেতনের অর্ধেক ৩ লাখ ২৫ হাজার টাকা দিয়েছেন। ক্রিকেটাররা ৩০ লাখ টাকার উপর দিচ্ছেন। ওয়ানডে অধিনায়ক বলেন, ‘হয়তো টাকার অংক খুব বড় নয়, তারপরও আমরা নিজ নিজ অবস্থান থেকে চেষ্টা করি। সংখ্যা যতই ক্ষুদ্র হোক, সবাই যদি এক সঙ্গে লড়াইয়ে নামি, তাহলে অবশ্যই করোনাভাইরাসকে হারানো সম্ভব।’ 

মুশফিক ৩ লাখ ১০ হাজার, মাশরাফি ২ লাখ ২৫, মাহমুদুল্লাহ ২ লাখ ১৫ হাজার,  লিটন ও মেহেদী মিরাজ ১ লাখ সাড়ে ৩৭ হাজার টাকা করে, মুমিনুল ১ লাখ ৬৫ হাজার, তাইজুল সোয়া লাখ, মিথুন ১ লাখ, নাজমুল শান্ত ও সাইফুদ্দিন ৭৫ হাজার, মুস্তাফিজ, শফিউল ও সৌম্য দেড় লাখ করে এবং ৫০ হাজার টাকা দিচ্ছেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, এবাদত হোসেন, নাসুম আহমেদ, তাসকিন আহমেদ, ইয়াসির আলি, সাইফ হাসান, হাসান মাহমুদ, মেহেদি হাসান, নাঈম শেখ, নাঈম হাসান, আফিফ হোসেন ও আবু জায়েদ রাহী।


আপনার মন্তব্য