শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৯ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৩৪

ম্যানসিটির প্যারিস জয়

ক্রীড়া ডেস্ক

ম্যানসিটির প্যারিস জয়

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালের প্রথম লেগের পর প্রথমবারের মতো  ফাইনাল খেলার স্বপ্ন দেখছেন ম্যানসিটির ভক্তরা। লিভারপুল-টটেনহ্যাম হটস্পারের পর ফের দুই ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি ও চেলসির ফাইনালের সম্ভাবনা উজ্জ্বল। পরশু রাতে প্যারিস সেন্ট জার্মেইনের মাঠে ২-১ গোলের জয় নিয়ে প্রথমবারের মতো ফাইনালের স্বপ্ন দেখছে পেপ গার্ডিওলার ম্যানচেস্টার সিটি। দ্বিতীয় লেগে ঘরের মাঠে খেলবে গার্ডিওলার শিষ্যরা। আরেক সেমিফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের মাঠে রিয়ালের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে চেলসি।  লা ব্লুজরা দ্বিতীয় লেগে খেলবে নিজেদের মাঠে। প্রথম লেগে জিতে সুবিধাজনক অবস্থানে থাকলেও শিষ্যদের সতর্ক করেছেন ম্যান সিটি কোচ গার্ডিওলা, ‘পিএসজি এমন একটি দল যারা যা খুশি তাই করতে পারে। কারণ তাদের রয়েছে মানসম্পন্ন খেলোয়াড়। তাই একটু বেশিই সতর্ক হয়ে খেলতে হবে। প্রথম লেগেই কোয়ালিফাই করা যায় না।’

গার্ডিওলা দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই বদলে যেতে থাকে ম্যানসিটি। নিয়মিত জিততে থাকে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা। ‘টিকিটাকা’ ফুটবল খেলে ইউরোপের অন্যতম সেরা ফুটবল পরাশক্তি এখন। ম্যান সিটি এর আগে চারবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্ব ডিঙাতে পারেনি। এবারই দুরন্ত ফুটবল খেলে ক্লাবের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সেমিফাইনালে উঠে। এবার ফাইনাল খেলার স্বপ্ন দেখছে। ফাইনালে উঠার প্রথম লেগে নেইমার, এমবাপ্পেদের হারিয়ে ফাইনালের পথে এক পা দিয়েই রেখেছে। যদিও কাজটি সহজ ছিল না। গতবারের ফাইনালিস্ট পিএসজি নিজ মাঠের লড়াইয়ে শুরুতে এগিয়েও গিয়েছিল। কিন্তু গার্ডিওলার ট্যাকটিসের সঙ্গে পেরে উঠেনি।

পিএসএজি গতবার প্রথমবারের মতো ফাইনাল খেলেও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। হেরে যায় বায়ার্ন মিউনিখের কাছে। এবার বায়ার্নকে হারিয়েই সেমিফাইনালে জায়গা করে নেয়। ঘরের মাঠে ১৫ মিনিটে এগিয়ে যায় নেইমাররা। ডান প্রান্ত থেকে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার কর্নারে কোনাকুনি হেডে ব্যবধান ১-০ করেন পিএসজির ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার মার্কিনিয়োস। পিছিয়ে পড়ার পর গোল শোধের জন্য মরিয়া হয়ে উঠে। কিন্তু পিএসজির রক্ষণভাগের দৃঢ়তায় গোলের দেখা পায়নি গার্ডিওলা বাহিনী। যদিও বেশ কয়েকটি সুযোগ সৃষ্টি করেছিল দলটি। দ্বিতীয়ার্ধে দুই দল বল পায়ে রেখে খেলতে থাকে। ফলে খেলার গতি কমে আসে। এরই মধ্যে ৬৪ মিনিটে খেলার বিপরীতে সমতা আনে ম্যান সিটি। কর্নার থেকে বল ধরে দারুণ এক শট নেন ডি ব্রুইন। বল সবার ওপর দিয়ে পিএসজির গোলরক্ষক কেইলর নাভাসকে বোকা বানিয়ে জালে জড়ায় (১-১)। ৭১ মিনিটে মাহরেজের গোলে ম্যাচ নিশ্চিত করে সিটি (২-১)।