শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ এপ্রিল, ২০২০ ২২:৫৫

করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু, লাশ বহনে খাটিয়া দিল না গ্রামবাসী!

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু, লাশ বহনে খাটিয়া দিল না গ্রামবাসী!

জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার বখতারপুর গ্রামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। ওই যুবকের মরদেহ বহনের জন্য খাটিয়া দেয়নি গ্রামবাসী। নিরুপায় হয়ে মরদেহ কাঁধে করে কবরস্থানে নিয়ে যায় বাবা ও দুই ভাই! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এরইমধ্যে ছবিটি ভাইরাল হয়েছে।

ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা যাচ্ছে, খাটিয়া না পেয়ে ওই যুবকের মরদেহ কাঁধে করে কবরস্থানের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন তিন ব্যক্তি।

গ্রামবাসীর এমন অমানবিক আচরণে বিস্ময়, ক্ষোভ ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ১০ দিন জ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভোগার পর মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে নিজ বাড়িতে ওই যুবকের মৃত্যু হয়। এরপর বুধবার সকালে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য মৃতের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। দুপুরে গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয় তাকে। নরসিংদীর একটি ইটভাটার শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন ওই যুবক।

সূত্র জানায়, করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ওই যুবকের মরদেহ বহনের জন্য গ্রামবাসীর কাছে পরিবারের পক্ষ থেকে খাটিয়া চাওয়া হয়। 'সংক্রমিত হওয়ার ভয়ে' খাটিয়া দিতে রাজি হয় না গ্রামবাসী। নিরুপায় হয়ে স্বজনরা খাটিয়া ছাড়াই মরদেহ কাঁধে করে কবরস্থানে নিয়ে দাফন করে।

সুনামগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. শামসুদ্দিন বলেন, দোয়ারাবাজারে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মৃত যুবকের নমুনা পরীক্ষার জন্য বুধবার সিলেট পাঠানো হয়েছে। এখনো রিপোর্ট আসেনি।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য