শিরোনাম
প্রকাশ : ১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:৩১
আপডেট : ১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:৫৬
প্রিন্ট করুন printer

চট্টগ্রাম বন্দরের নতুন চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম :

চট্টগ্রাম বন্দরের নতুন চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান
রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান

রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ (চবক) এর চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন। এর আগে, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি। মোংলা বন্দরে যোগদানের আগে তিনি বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের উপ-মহাপরিচালক ছিলেন। 

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের বিদায়ী চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এসএম আবুল কালাম আজাদকে বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে প্রত্যাবর্তনের লক্ষ্যে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে ন্যস্ত করা হয়েছে। বুধবার সরকারের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রেষণ-২ অধিশাখা থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে বিষয়টি জানানো হয়। এতে স্বাক্ষর করেন উপসচিব মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ। 

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রিয়ার এডমিরাল এম শাহজাহান (এনবিপি, এনডিসি, পিএসসি) ১৯৮৪ সালের ২৪ জুলাই বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে যোগদান করেন এবং ১৯৮৭ সালের ২৪ জুলাই কমিশন প্রাপ্ত হন। চাকরি জীবনে তিনি বিভিন্ন সময়ে নৌবাহিনীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। এর আগে, তিনি চট্টগ্রাম বন্দরের সদস্য (হারবার) ছিলেন। কর্মজীবনে তিনি সাহস, সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন 

বিডি-প্রতিদিন/শফিক/রিয়াজ হায়দার চৌধুরী


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:১৬
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:২৬
প্রিন্ট করুন printer

বিএনপির ৫৬ এজেন্টকে গ্রেফতারের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

বিএনপির ৫৬ এজেন্টকে গ্রেফতারের অভিযোগ

চসিক নির্বাচনে বিএনপির ৫৬ নির্বাচনী এজেন্টকে গ্রেফতারের অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাচন কমিশনে গিয়ে এ অভিযোগ করেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন।

অভিযোগের বিষয়ে ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘নির্বাচনী বিএনপি জয় নিশ্চিত বুঝতে পেরে সরকার ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। বিএনপি ও অন্যান্য অঙ্গসংগঠনের নেতা কর্মীদের গণহারে গ্রেফতার করছে। সোমবার রাতে নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে বিএনপি’র ৫৬ জন এজেন্ট গ্রেফতার করা হয়। নির্বাচনী এজেন্টদের ছাড়িয়ে আনতে নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করেছি। তাদের ছাড়িয়ে আনতে না পারলে নির্বাচনী দায়িত্ব থেকে সরে আসা উচিত তাদের।'

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:২৩
প্রিন্ট করুন printer

চসিক নির্বাচন: ভোটের মাঠে ‘রেড ক্রিসেন্ট’

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম

চসিক নির্বাচন: ভোটের মাঠে ‘রেড ক্রিসেন্ট’

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনে প্রচারণাকে কেন্দ্র প্রাণ হারিয়েছেন দুইজন। নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারও নির্বাচনে সংঘাতের শঙ্কা প্রকাশ করেছিল। এছাড়া কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় শঙ্কাটাও দ্বিগুণ হয়েছে। ফলে চসিক নির্বাচনের ভোটের মাঠে সহিংসতার ঝুঁকি দেখা দিয়েছে।  

তবে সহিংসতার এমন অবস্থায় সংঘাতের সম্ভাবনাটি সামনে চলে আসছে। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। চট্টগ্রাম নগরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে অবস্থান নিয়ে নির্বাচনী সহিংসতায় আহতদের চিকিৎসা দেওয়া হবে। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির তত্ত্বাবধানে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম সিটি ইউনিট এই কর্মসূচিটি বাস্তবায়ন করছে।

রেড ক্রিসেন্টের প্রচার বিভাগের উপ প্রধান মিসবাহ উদ্দিন বলেন, ‘একটি দুর্ঘটনায় আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা সেবার প্রয়োজনীয় সব প্রস্তুতি নিয়ে তিনটি গাড়ি সড়কে সড়কে প্রদক্ষিণ করবে। গাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসায় প্রশিক্ষিত পাঁচজনের একটা টিম এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসা উপকরণ থাকবে।’ 

জানা যায়, রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবকরা প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার সরঞ্জাম নিয়ে নগরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অবস্থান নিয়েছেন। তাদের এই কর্মসূচি চলবে নির্বাচনের পরদিন ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত। নগরে ঘুরছে দুটি মাইক্রোবাস ও একটি অ্যাম্বুলেন্স। গাড়িগুলো সম্ভাব্য নির্বাচনী সংঘাতে আহতদের চিকিৎসা ও আনা-নেওয়ার কাজ করবে। সবক’টি গাড়িতে আছে প্রাথমিক চিকিৎসার সরঞ্জাম।

প্রতিটি গাড়িতে থাকছেন ৫ জন করে স্বেচ্ছাসেবক। তারা তিনটি দলে ভাগ হয়ে প্রাথমিক চিকিৎসার কাজটি করছেন। প্রাথমিকভাবে জামালখান, বাকলিয়া, মোগলটুলীর মতো ঝুঁকিপূর্ণ জায়গাগুলোতে রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবকরা সক্রিয় থাকবেন। 

তবে নগরের ৪১টি ওয়ার্ডেই তাদের পদচারণা থাকবে। তুলনামূলক কম আহতদের মাইক্রোবাসে এবং অবস্থা গুরুতর হলে তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে মেডিকেলে পাঠানো হবে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:১৫
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:২২
প্রিন্ট করুন printer

আশা করি চসিকে ভালো নির্বাচন দেখবেন: ইসি সচিব

নিজস্ব প্রতিবেদক

আশা করি চসিকে ভালো নির্বাচন দেখবেন: ইসি সচিব
মো. আলমগীর (ফাইল ছবি)

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচন সম্পর্কে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর বলেছেন, আশা করি কালকে একটা ভালো নির্বাচন দেখবেন। 

আজ মঙ্গলবার বিকালে আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে নিজ কার্যালয়ে চসিক নির্বাচনের সর্বশেষ সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন সচিব। 

প্রস্তুতি নিয়ে সচিব বলেন, কমিশন থেকে প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। বিশেষ করে যেহেতু রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে সমস্ত দায়িত্ব ন্যাস্ত করা আছে। সেখানে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর লোক, আমাদের রিটার্নিং অফিসার, পোলিং অফিসার এবং যেহেতু ইভিএমে ভোট হচ্ছে, তাই ইভিএমের কারিগরী সহায়তা দেয়ার জন্য সবাই এখন চট্টগ্রামে অবস্থান করছেন। পূর্ণ প্রস্তুতি শেষ। আমরা আশা করি যে, একটা সুষ্ঠু এবং প্রতিযোগিতামূলক শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য যা যা উদ্যোগ নেয়া দরকার তা নেয়া হয়েছে। 

রিটার্নিং অফিসার এবং পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে যে পরিমাণ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চাহিদা দিয়েছে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সে পরিমাণ অনুমোদন দেয়া হয়েছে এবং তাদের কাছে বাজেটও দেয়া হয়েছে। এছাড়াও প্রতি ওয়ার্ডে একজন করে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন। কেউ শাস্তিযোগ্য অপরাধ করলে তাকে শাস্তি দিতে প্রতি দুইটি ওয়ার্ডের জন্য একজন করে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন। আমরা মনে করি যে যত রকম নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন তার সবটুকুই সেখানে নেয়া আছে। 

তিনি বলেন, বাইরের লোক যারা ওই এলাকার ভোটার না, ভোটকেন্দ্রে এসে গোণ্ডগোল করতে পারে এরকম কাজ যাতে করতে না পারে এজন্য শহরে প্রবেশ করার যে রাস্তাগুলো আছে সেখানে পুলিশি পাহাড়া থাকবে। যাতে করে ভোটার ছাড়া অন্য কোনো লোকজন ভোটকেন্দ্রে এসে কোনো গণ্ডগোল করতে না পারে। এছাড়া ভোটকেন্দ্রের বাইরেও যাতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার ক্ষেত্রে কোনো রকম বাধার সৃষ্টি করতে না পারে। আমরা মনে করি, নির্বাচন অত্যন্ত সুষ্ঠু এবং সুন্দরভাবে করার জন্য যা যা করার দরকার তার সব ধরনের ব্যবস্থা নির্বাচন কমিশন গ্রহণ করেছে। 

সহিংসতার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা প্রথম দিকে হয়েছিল। তারপর সেখানে সবাই খুব সতর্ক হয়ে গেছেন। এরপর আল্লাহর রহমতে আর কোনো ঘটনা ঘটেনি। আমরা আশা করি ওই ধরনের কোনো ঘটনা আর ঘটবে না। যাতে না ঘটে তার জন্য ওই প্রস্তুতি। আমাদের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ১০ হাজারের উপরে সেখানে নিয়োজিত আছে। ওই ধরনের আর কোনো ঘটনা ঘটবে না বলেই আমরা মনে করি। 

ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র কতগুলো জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা তো আপনাদের বলা যাবে না। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র কতগুলো এটা তো গোপনীয় জিনিস। 

জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ২০ জন এবং এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ৪০ জন নিয়োগ দেয়া হয়েছে বলেও জানান সচিব। 

করোনা পরিস্থিতিতে ভোটে নির্দেশনা সম্পর্কে তিনি বলেন, আমাদের বলাই আছে স্বাস্থ্যবিধি যা মেনে চলা দরকার তার সব মেনে চলার নির্দেশনা দেয়া আছে। ভোটার যখন লাইনে দাঁড়াবেন তখন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দাঁড়াবেন। ইভিএমে ভোট দেয়া হবে তাই ভোট দেয়ার আগে এবং পরে হাত হ্যান্ডওয়াস করে নেবেন। আর সবাইকে মাস্ক পড়ে যেতে হবে। মাস্ক ছাড়া কেউ গেলে তাকে ভোট দিতে দেয়া হবে না বা দায়িত্ব-পালন করতে দেয়া হবে না। 

নির্বাচনে সহিংসতা এবং অনিয়মের দায় কমিশন এড়াতে পারে না একজন নির্বাচন কমিশনারের এমন বক্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, এটা মাননীয় কমিশনারই বলতে পারবেন। আমার কোনো বক্তব্য নেই। 
আপনারা আশা করছেন সুষ্ঠু নির্বাচন হবে। সাংবাদিকরা জানতে চাইলে তিনি বলেন, অবশ্যই। আশা না করার কোনো কারণ নেই তো। 

বি ডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:০২
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:০৭
প্রিন্ট করুন printer

চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত পাসপোর্টের পরিচালক

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত পাসপোর্টের পরিচালক
মো. আবু সাঈদ

এবার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় আঞ্চলিক পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের পরিচালক মো. আবু সাঈদ। মঙ্গলবারও তিনি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নিজ অফিসে কাজ পরিচালনা করেছেন। গত ১৬ জানুয়ারি থেকে তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তবে বর্তমানে কিছুটা সুস্থতার দিকে আছেন। এর আগে চট্টগ্রামে পাসপোর্ট অফিসের আরও বেশ কয়েকজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিল।

অফিস ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, তিনি প্রতিদিন অফিসের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে দিক-নির্দেশনামূলক আলোচনা, নানাবিধ সমস্যা-সমাধের বিষয়ে পাসপোর্ট আবেদনকারিদের সঙ্গে সাক্ষাতসহ ব্যস্ততার মধ্যেই রয়েছেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে বিভিন্ন স্থানের পাশাপাশি চট্টগ্রামের পাসপোর্ট অফিসেও করা হয়েছিল সীমিত পরিসরে উপস্থিতিতি। এসময় সাধারণ মানুষের বা আবেদনকারিদের স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পাসপোর্ট অফিসে উপস্থিত হওয়ায় নোটিশও দেয়া হয়েছিল। অনেকেই এসব বিষয় না মেনে ভেতরে প্রবেশ করেছেন।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়ে চট্টগ্রাম বিভাগীয় আঞ্চলিক পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের পরিচালক মো. আবু সাঈদ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, মঙ্গলবারও অফিসে ছিলাম। আবেদনকারিদের নানাবিধ সমস্যার বিষয়ে শুনতে হয়। বর্তমানে কিছুটা অফিস করার চেষ্টা করছি। তবে আগের চেয়ে এখন কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে উঠছেন বলে জানান তিনি।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম বিভাগীয় আঞ্চলিক পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস এবং চান্দঁগাও আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে জমে থাকা আবেদনকারিদের মধ্যে রয়েছেন পাঁচলাইশ, চান্দগাঁও, কোতোয়ালী, চকবাজার, বাকলিয়া, কর্ণফুলী থানা, ফটিকছড়ি, হাটহাজারী, রাঙ্গুনিয়া, বোয়ালখালী, আনোয়ারা, পটিয়া, চন্দনাইশ, সাতকানিয়া, বাঁশখালী ও লোহাগাড়া উপজেলার বাসিন্দারা।

এসব অফিসে প্রতিদিন শতশত আবেদনকারি উপস্থিত হচ্ছেন। এসব আবেদনকারিদের সঙ্গে নানাবিধ বিষয়ে কথাও বলতে হচ্ছে কর্মকর্তাদের।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার 

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:৫৩
প্রিন্ট করুন printer

বাশঁখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

বাশঁখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর চেচুরিয়া এলাকায় সিএনজি অটোরিকশার সঙ্গে মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে তানভীর সিকদার (২৪) নামে এক ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু হয়েছে। সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করা তানভীর সিকদার দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক। 

তিনি উপজেলার গন্ডামারা ইউনিয়নের পূর্ব বড়ঘোনা এলাকার আবু শমা ইউসুফ সিকদারের ছেলে। মঙ্গলবার এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান বাঁশখালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আক্তার হোসেন।

স্থানীয়দের সূত্রে তিনি বলেন, সকালে বাড়ি থেকে বের হয়ে গুনাগরি যাওয়ার পথে চেচুরিয়া এলাকায় সিএনজি অটোরিকশার সঙ্গে মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে গুরুতর আহত হন তানভীর। ঘটনাস্থলেই তার মৃুত্যু হয়। দুর্ঘটনা কবলিত সিএনজি অটোরিকশা এবং মোটরসাইকেল থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। মরদেহ আইনি প্রক্রিয়া শেষ করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর