শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৬:৫১
প্রিন্ট করুন printer

চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা কমে দুই ডিজিটে

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা কমে দুই ডিজিটে
প্রতীকী ছবি
Google News

চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা কমছে। গত এপ্রিল থেকে টানা তিন থেকে চার ডিজিট সংখ্যায় আক্রান্ত হয়ে আসছে। তবে গত তিনদিন টানা দুই ডিজিটে আক্রান্ত হয়েছে। বিপরীতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা কমছে না। প্রতিদিনই দুই থেকে ছয়জন করে মারা যাচ্ছেন।

গতকাল সোমবার করোনায় আক্রান্ত হয়ে দুইজন মারা গেছেন।

জানা যায়, গত ১৩ সেপ্টেম্বর সোমবার চট্টগ্রামে একদিনে আক্রান্ত হন ৯৭ জন এবং মারা গেছে দুইজন। গত ১২ সেপ্টেম্বর আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪ জন এবং মারা যান ছয়জন, ১১ সেপ্টেম্বর আক্রান্ত হন ৫৩ জন এবং মারা যান তিনজন, ১০ সেপ্টেম্বর আক্রান্ত হন ৮২ জন এবং মারা গেছেন একজন। 

তবে এর আগে গত এপ্রিল-মে-জুন মাসে ৫০০ থেকে ১৫০০ জন পর্যন্ত এবং জুলাই-আগস্ট গড়ে ১২০ থেকে ১৫০ জন আক্রান্ত হয়। পক্ষান্তরে চট্টগ্রামে গত সোমবার একদিনে ১০টি ল্যাবে এক হাজার ৩৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয় ৯৭ জনের শরীরে।  

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, গত কয়েকদিন ধরে আক্রান্তের সংখ্যা কমে দুই ডিজিটে হয়েছে। এটি ভাল লক্ষণ। তবে সবাইকে অবশ্যই সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। টিকা নিচ্ছি কিংবা সংক্রমণ কমছে-এসব চিন্তা করে স্বাস্থ্যবিধি না মানার চেষ্টা করলে হবে না। বরং আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সংক্রমণ কমার হারটা অব্যাহত রাখতে হবে।

চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের কনসালটেন্ট (মেডিসিন) ডা. এইচএম হামিদুল্লাহ মেহেদী বলেন, গত বছরও পিক আওয়ারের পর, শীত আসার আগে আগে শীত মৌসুমে সংক্রমণ কমে গিয়েছিল। হয়তো এবারও সে রকম হচ্ছে। বিষয়টি গবেষণার। তাছাড়া বৈশ্বিকভাবেও সংক্রমণ কমছে। তবুও সবাইকে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। মাস্ক অবশ্যই পরতে হবে।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামে গত সোমবার একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯৭ জন। গতকাল পর্যন্ত চট্টগ্রামে মোট আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৯২৬ জন। এর মধ্যে মহানগরে ৭৩ হাজার ১৮২ জন এবং উপজেলায় ২৭ হাজার ৭৮০ জন। ইতোমধ্যে মারা গেছেন এক হাজার ২৭৬ জন। এর মধ্যে মহানগরে ৭০৪ জন ও উপজেলায় ৫৭২ জন। চট্টগ্রামে সরকারি-বেসরকারি ১০টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা চলছে।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

এই বিভাগের আরও খবর