শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১০:৩১
আপডেট : ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:১৪

কিছুক্ষণ পর ট্র্যাকে ঝড় তুলবে ‘বনলতা এক্সপ্রেস’

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

কিছুক্ষণ পর ট্র্যাকে ঝড় তুলবে ‘বনলতা এক্সপ্রেস’

আর কিছুক্ষণ পর উদ্বোধন হতে যাচ্ছে রাজশাহী- ঢাকা রুটে চালু হতে যাচ্ছে বহুল কাঙ্ক্ষিত বিরতী বিহীন ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেস। কিছুক্ষণ পর এটির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) খন্দকার শহীদুল ইসলাম তাকে জানিয়েছেন, গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্রেনটি শুভ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন উপস্থিত থাকবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য সকাল ৭টার পরিবর্তে সকাল সাড়ে ১১ টায় রাজশাহী থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে ট্রেনটি। তবে অন্য দিন নির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী চলবে। 

মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, এটি তার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল। তাই রাজশাহী-ঢাকা বিরতিহীন ট্রেন চালুকরণ ও ট্রেনটি অনুমোদন দেওয়ায় তিনি রাজশাহীবাসীর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।
রাজশাহী-ঢাকার মধ্যে প্রথম বিরতিহীন ট্রেনের ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ নামটি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নতুন ট্রেন সার্ভিসে ইন্দোনেশিয়া থেকে আনা নতুন বগি যুক্ত করা হবে। রাজশাহী থেকে সকাল ৭টায় ছেড়ে ঢাকায় পৌঁছাবে বেলা ১১টায়। আবার একইদিন ট্রেনটি রাজশাহীর উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বে বেলা দেড়টায়। রাজশাহী রেলস্টেশনে পৌঁছাবে বিকেল সাড়ে পাঁচটায়।

এই প্রথম দেশের আন্তঃনগর কোনো ট্রেনে উড়োজাহাজের মতো বায়োটয়লেট সংযুক্ত হচ্ছে। এ কারণে মলমূত্র আর রেললাইনের ওপরে পড়বে না। স্টেশনে দাঁড়ানো থাকা অবস্থায়ও যাত্রীরা টয়লেট ব্যবহার করতে পারবেন। প্রথমবারের মতো ট্রেনটিতে রিক্লেনার চেয়ার বসানো থাকবে। যেখানে পা এবং হেলান দেওয়ার আরামদায়ক সুবিধা রয়েছে। আর এসি বাথের কেবিনে বেডরেস্ট দেওয়া হবে। যা রাতে বিছিয়ে দিলে ছোট খাটের মতো হয়ে যাবে। এছাড়া কেবিনে ওপরের সিটে ওঠার জন্য স্টিলের মইয়ের বাদলে সিঁড়ি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, নতুন ট্রেনের মোট বগির সংখ্যা ১২টি। এর মধ্যে শোভন চেয়ার ৭টি, এসি ২টি, একটি পাওয়ার কার, দুটি গার্ডব্রেক ও একটি খাওয়ার বগি। ট্রেনটিতে মোট আসন সংখ্যা হবে ৯২৮টি। এর মধ্যে শোভন চেয়ারের ভাড়া  ৩৭৫ টাকা। আর স্নিগ্ধার (এসি চেয়ার) ভাড়া  ৭১৯ টাকা। 

বিদ্যমান ট্রেনগুলোতে এখন ৩৪৩ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা লাগে। এতে রাজশাহী-ঢাকা ট্রেন ভ্রমণে সময় বাঁচবে আড়াই ঘণ্টা। প্রস্তাবিত সময়সূচি অনুযায়ী, ঢাকা থেকে ট্রেনটি দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে ছেড়ে রাজশাহী পৌঁছবে সন্ধ্যা পৌনে ৬টায়। রাজশাহী থেকে সকাল ৭টায় ছেড়ে ঢাকা পৌঁছাবে বেলা ১১টায়। বিরতিহীন চার্জ হিসাবে বিদ্যমান ভাড়ার সঙ্গে ১০ শতাংশ অতিরিক্ত টাকা দিতে হবে ভ্রমণকারীদের।

বর্তমানে রাজশাহী-ঢাকা রুটে মোট তিনটি আন্তঃনগর ট্রেন চালু আছে। এগুলো হলো- পদ্মা, ধূমকেতু ও সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস। শুরুতে এসব ট্রেন যেক’টি স্টেশনে থামত, এখন তার চেয়ে অনেক বেশি স্থানে থামছে। বর্তমানে ১৪টি স্টপেজ রয়েছে আন্তঃনগর এই ট্রেনগুলোর।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য