শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২০:৫০

মামাকে ''নানা'' দেখিয়ে ফাঁসলেন কৃষি কর্মকর্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

মামাকে ''নানা'' দেখিয়ে ফাঁসলেন কৃষি কর্মকর্তা

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা দুলাল হোসেনের (৩০) মামার নাম ইব্রাহিম আলী মণ্ডল। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা। কিন্তু চাকরি পেতে দুলাল তার ‘মামা’কে ‘নানা’ হিসেবে দেখিয়েছেন। ইব্রাহিম আলী মণ্ডলের মুক্তিযোদ্ধা সনদের কারণে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় দুলালের চাকরিও হয়েছে। চাকরি পাওয়ার ছয় বছর পর দুলালের জালিয়াতি ধরা পড়েছে। অনুসন্ধান শেষে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে। দুদকের রাজশাহীর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মঙ্গলবার মামলা দায়ের করা হয়েছে। দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক সরদার আবুল বাসার মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, দুলাল হোসেনের বাড়ি নওগাঁর মান্দা উপজেলার তানইল গ্রামে। তার বাবার নাম মোসলেম উদ্দিন। মা দুলোতন বিবি। দুলাল এখন নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার বামনসাতা-সফাপুর ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা। ২০১৩ সালে তার নিয়োগপত্র ইস্যু হয়। আগের বছর মুক্তিযোদ্ধা কোটায় তিনি চাকরির জন্য আবেদন করেন। আবেদনে দুলাল উল্লেখ করেন ইব্রাহিম আলী মণ্ডল তার ‘নানা’। আর মা দুলোতন বিবি ইব্রাহিমের মেয়ে। অথচ তারা ভাই-বোন।

দুলাল মান্দার ভালাইন ইউনিয়ন পরিষদের তৎকালীন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের কাছ থেকে প্রত্যয়নপত্র নেন। এতে বলা হয়, দুলোতন বিবি ইব্রাহিমের বড় মেয়ে। তাই সংরক্ষিত মুক্তিযোদ্ধা কোটায় তার চাকরি হয়ে যায়। কিন্তু অভিযোগ পেয়ে দুদক অনুসন্ধান করতে গিয়ে দেখে, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে প্রত্যয়নপত্র ইস্যু করা হয়নি। সেটি ভুয়া। আর ইব্রাহিম দুলালের ‘নানা’ নয়, ‘মামা’। তাই মামলা করা হয়।

এ বিষয়ে কথা বলতে দুলাল হোসেনের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। 

দুদকের সমন্বিত রাজশাহী জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম জানান, দুলাল পলাতক আছেন। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বিডি-প্রতিদিন/মাহবুব


আপনার মন্তব্য