শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৫:২৮
প্রিন্ট করুন printer

এবার বাসন্তি উৎসব হয়নি বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজে, বিকেলে উদীচীর বসন্ত উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

এবার বাসন্তি উৎসব হয়নি বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজে, বিকেলে উদীচীর বসন্ত উৎসব
পহেলা বসন্তে সরকারি মহিলা কলেজে সেলফি তুলছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

চিরাচরিত রীতি অনুযায়ী এবার পহেলা ফাল্গুনে বাসন্তি উৎসব হয়নি বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজে। করোনার কারণে আয়োজন হয়নি কোন মঞ্চানুষ্ঠানের। তবে কিছু শিক্ষার্থী সেঁজেগুজে ক্যাম্পাসে এসে সেলফি তুলে, বন্ধু ও স্বজনদের সাথে আনন্দঘন মুহূর্ত কাটিয়েছেন। 

তবে বরাবরের মতো এবারও নগরীর জগদিশ সারস্বত বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বিকেলে বসন্ত উৎসবের আয়োজন করেছে সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচী এবং বরিশাল নাটক। অপরদিকে সার্কিট হাউজ চত্বরে বিকেল ৫টায় বসন্ত উৎসবের আয়োজন করেছে জেলা প্রশাসন। 

পহেলা ফাল্গুনে মনের রঙে রাঙিয়ে বাসন্তি উৎসবে শামিল হন তরুণ-তরুণীরা। তারা বাসন্তি রঙের পোশাক পড়ে বন্ধু-বান্ধবের সাথে স্মরণীয় করে রাখেন দিনটি। কিন্তু এবার করোনায় বিবর্ণ পহেলা বসন্ত। চিরাচরিত রীতি অনুযায়ী পহেলা বসন্তের প্রথম দিন এবার কোন আয়োজন নেই সরকারি মহিলা কলেজের বকুলতলার আলোকায়ন মঞ্চে। 

অন্যান্য বছর নাচ, গান, আবৃত্তি এবং আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে পহেলা বসন্ত স্মরণীয় করে রাখে সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা। অনেকে এক বছর পর ক্যাম্পাসে পা রেখে আনন্দে উদ্বেলিত হন। এবার মঞ্চানুষ্ঠান না হলেও কিছু শিক্ষার্থী সেঁজেগুজে ক্যাম্পাসে এসে আনন্দময় সময় কাটিয়েছেন। তারা সেলফি তুলে, বন্ধু বান্ধবের সাথে আড্ডা দিয়ে স্মরণীয় মুহূর্ত কাটিয়েছেন। করোনামুক্ত আগামীর বাংলাদেশ প্রত্যাশা করেন তারা। 

সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. আসাদুজ্জামান বলেন, প্রকৃতির কাছ থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে। প্রকৃতি যখন নতুনভাবে সাঁজে, তখন মানুষের মনও রাঙায়। মানুষ প্রকৃতির মতো পবিত্র হয়। সৌন্দর্যে মানুষের মন আপ্লুত হয়।  আপ্লুত হওয়া বাঙালীর ঐতিহ্য। আনুষ্ঠানিকতা না হলেও যে যার মতো করে বসন্ত ও ভ্যালেন্টাইন দিবস উপভোগ করছে। এভাবে মন রাঙিয়ে দেশের জন্য কাজ করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। 

এদিকে বরাবরের মতো বিকেল ৪টায় নগরীর কালীবাড়ি রোডের জগদিশ সারস্বত মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বসন্ত উৎসবের আয়োজন করেছে সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচী এবং বরিশাল নাটক। নাচ, গান, আবৃত্তি এবং আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে আয়োজন করা হয়েছে বসন্ত উৎসবের। যদিও করোনার কারণে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং পিঠা উৎসবের আয়োজন করেনি কর্তৃপক্ষ।

অপরদিকে বিকেল ৫টায় সার্কিট হাউজ চত্বরে বসন্ত উৎসবের আয়োজন করেছে জেলা প্রশাসন। সেখানে নাচ, গান সহ নানা আয়োজনের মধ্য আয়োজন করা হয়েছে বসন্ত উৎসবের। 

বসন্ত উৎসবের সবগুলো অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর