শিরোনাম
প্রকাশ : ৩১ মার্চ, ২০২১ ১৪:১৩
প্রিন্ট করুন printer

বরিশালে গণপরিবহনে মানা হচ্ছে না সরকারি নির্দেশনা

কাল নতুন নির্দেশনা কার্যকর হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালে গণপরিবহনে মানা হচ্ছে না সরকারি নির্দেশনা

করোনা সংক্রামন রোধে ১৮ দফা নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। কিন্তু বরিশালের গণপরিবহনে সরকারের ওইসব নির্দেশনা মানা হচ্ছে না। আগের মতোই চলছে বরিশালের অভ্যন্তরীন ও দূরপাল্লা রুটের গণপরিবহনে যাত্রী পরিবহন। বাড়েনি ভাড়াও। এতে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে আশংকা যাত্রীদের। তবে কাল পহেলা এপ্রিল থেকে প্রতি ২ সিটে একজন যাত্রী পরিবহন এবং বর্ধিত ভাড়া কার্যকর করার কথা জানিয়েছেন পরিবহন সংশ্লিষ্টরা। 

দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেসামাল করোনা পরিস্থিতি। বিশেষ করে বরিশালে করোনা সংক্রামন বাড়ছে আশংকাজনকভাবে। গত ২৪ ঘণ্টায় শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে ১৮১ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা সনাক্ত হয়েছে ২৭ জনের। সনাক্তের হার ১৪ ভাগ। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় (সোমবার) ১৮১ জনের নমুনা পরীক্ষায় সনাক্ত হয়েছে ৩৭ জনের। সনাক্তের হার ১৮ ভাগ। এর আগের ২৪ ঘণ্টায়ও (রবিবার) ১৮১ জনের নমুনা পরীক্ষায় সনাক্ত হয়েছে ৩৭ জনের। সনাক্তের হার ছিলো ১৮ ভাগ। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় (শনিবার) ২৪৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় সনাক্ত হয়েছে ২৭ জনের। সনাক্তের হার ৭ ভাগ। 

এদিকে বুধবার শের-ই বাংলা মেডিকেলের করোনা ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে ভর্তি ছিলেন ৯৩ জন। যার মধ্যে করোনা সনাক্ত হয়েছে ২৫ জনের। মঙ্গলবার ভর্তি থাকা ৮৭ জনের মধ্যে করোনা সনাক্ত ছিলো ২৫জন এবং গত সোমবার ভর্তি থাকা ৫৪ জনের মধ্যে সনাক্ত হয়েছে ২২জনের। 

এমন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য বিধি রক্ষায় গণপরিবহনের এক সিট ফাঁকা রেখে যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। নির্দেশনা দিয়েছে ভাড়া বাড়ানোর। কিন্তু বরিশাল নগরীর দুটি বাস টার্মিনাল থেকে বুধবার ছেড়ে যাওয়া দূরপাল্লা এবং অভ্যন্তরীন রুটের বাসের স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষিত হয়েছে পুরোপুরি। পাশাপাশি সিটে আবার কখনও গাদাগাদি করে দাঁড়ানো যাত্রী নেয়া হচ্ছে বাসে। ভাড়াও বাড়েনি। সব কিছুই চলছে আগের মতো স্বাভাবিক নিয়মে। এতে করোনা সংক্রামন বেড়ে যাওয়ার আশংকা করছেন যাত্রীরা। তারা স্বাস্থ্য বিধি মেনে যাত্রী পরিবহনের দাবি জানিয়েছেন।

এদিকে পরিবহন সংশ্লিস্টরা বলছেন, সরকারের নির্দেশনা তারা আজ পহেলা এপ্রিল থেকে কার্যকর করবেন। যাত্রী কম হওয়ায় স্বাস্থ্য বিধি তেমন লংঘিত হচ্ছে না বলে দাবি তাদের। 

নগরীর অভ্যন্তরের গণপরিবহনেও একইভাবে চলছে যাত্রী পরিবহন। জনসমাগমও হচ্ছে আগের মতো। মাস্ক পড়ায়ও অনীহা রয়েছে জনসাধারনের। 

করোনা সংক্রামন রোধে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী সুজা জানান, সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে তারা তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। পরিবহন কর্তৃপক্ষকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কেউ নিয়মের ব্যতয় ঘটালে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর