শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০১:২৮

মডেল ওয়ার্ডের প্রতিশ্রুতি

শামীম আহমেদ

মডেল ওয়ার্ডের প্রতিশ্রুতি

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নবসৃষ্ট ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডের বেশিরভাগ সড়ক বেহাল। ভাঙাচোরা সরু সড়কগুলোর অনেক স্থানে আরও সরু হয়ে আছে নির্মাণকাজের মালামাল রাখায়। আবাসিক এলাকার মধ্যে অপরিকল্পিত ভাবে গড়ে উঠেছে অনেক শিল্প-কারখানা। পর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় বর্ষা এলেই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয় বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। তবে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিজয়ী হলে এসব সমস্যা সমাধানের পাশাপাশি ওয়ার্ডটিকে ‘মডেল ওয়ার্ড’ হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা। সব প্রার্থীরই অগ্রাধিকার বেহাল সড়ক মেরামত ও জলাবদ্ধতা নিরসনে।

ডিএনসিসির ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডটি সাবেক হরিরামপুর ইউনিয়নের রোশাদিয়া, কালিয়ারটেক, খায়েরটেক, কামারপাড়া, ভাটুলিয়া, নয়ানীচালা, রাজাবাড়ী, ধউর, আশুতিয়া নিয়ে গঠিত। ভোটার প্রায় ২৪ হাজার। চলতি বছরের শুরুতে নতুন ওয়ার্ডটির প্রথম নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন ১০ জন। আসন্ন নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে লড়তে চান এমন অন্তত আটজনের নাম পাওয়া গেছে। তবে দলীয় মনোনয়নের বিষয় থাকায় প্রার্থী অর্ধেকে নামতে পারে।

জানা গেছে, এবার কাউন্সিলর নির্বাচনে দলীয় সমর্থন পেতে চেষ্টা চালাচ্ছেন আওয়ামী লীগের অন্তত চার নেতা। তারা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হোসেন যুবরাজ, বিলুপ্ত হরিরামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবদুর রাজ্জাক, তুরাগ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসেমের ছেলে জাহিদুল হাসান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মো. সোহেল শেখ। অন্যদিকে গত নির্বাচনে প্রার্থী না দিলেও এবার ওয়ার্ডটিতে বিএনপিরও চার নেতা নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তারা হলেন, তুরাগ থানা বিএনপির সাধারণ সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ খোকন, সহ-সভাপতি জহিরুল ইসলাম (হাজী জহির), সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল মাতবর ও ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি হানিফ ভান্ডারী। বর্তমান কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমি কাউন্সিলর হয়েছি মাত্র নয় মাস। পাঁচ বছর সময় পেলে ওয়ার্ডটিকে মাদকমুক্ত মডেল ওয়ার্ড করার স্বপ্ন আছে। আবদুর রাজ্জাক বলেন, স্থানীয় রাজনীতিতে আমি পুরনো মুখ। আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দিলে নির্বাচন করব। বিজয়ী হলে ওয়ার্ডের সমস্যা ধরে ধরে সমাধান করব। তবে দল যাকে মনোনয়ন দেবে তাকেই সমর্থন করব। জাহিদুল হাসান বলেন, পারিবারিকভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতি দেখে বড় হয়েছি। এখন আওয়ামী লীগে অনেক নতুন মুখ। আমি আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী। বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী হারুন অর রশিদ খোকন বলেন, এলাকাবাসীর ভাগ্য বদলের জন্য নির্বাচন করতে চাই। হাজী জহির বলেন, কাউন্সিলর হলে সবার আগে রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে হাত দেব। দল না চাইলে নির্বাচন করব না।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর