শিরোনাম
বৃহস্পতিবার, ২৭ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ টা

সাংবাদিককে আওয়ামী লীগ অফিসে আটকে পিটুনি

এসপির আশ্বাস : মামলা করলে ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালের মুলাদীতে একটি আঞ্চলিক দৈনিক পত্রিকার প্রতিনিধিকে দলীয় কার্যালয়ে মঙ্গলবার দরজা আটকে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের উপস্থিতিতে তার কর্মীরা বেদম পিটুনি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। প্রহৃত সাংবাদিকের নাম মো. সেলিম রাঢ়ি। তিনি ‘দৈনিক আজকের পরিবর্তন’-এর হিজলা উপজেলা প্রতিনিধি। নির্যাতনের ঘটনা প্রকাশ করলে তাকে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেওয়া হয়। তবে মুলাদী উপজেলা চেয়ারম্যান তারিকুল হাসান খান মিঠু এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন। সাংবাদিক নির্যাতনের লিখিত অভিযোগ পেলে খতিয়ে দেখে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস। এদিকে থানায় লিখিত অভিযোগ করলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম। সেলিম জানান, গত মঙ্গলবার তিনি হিজলা থেকে মোটরবাইকে মুলাদী হয়ে বরিশাল যাচ্ছিলেন। বেলা ২টা ২০ মিনিটের দিকে বাইকটি মুলাদী সিনেমা হল মোড়ে যানজটে পড়ে। খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, ট্রাকের সঙ্গে উপজেলা চেয়ারম্যানের ভাগ্নের মোটরবাইকের সংঘর্ষ হয়েছে। সেলিমের সঙ্গে থাকা আলমগীর মুঠোফোনে দুর্ঘটনার ছবি তোলেন।  উপজেলা চেয়ারম্যান মিঠু এতে ক্রুদ্ধ হয়ে সেলিম ও আলমগীরকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন এবং আচমকা আলমগীরের ফোনসেটটি ছিনিয়ে নিয়ে পাশের নদীতে ছুড়ে মারেন।

বিষয়টির সুরাহার জন্য মুলাদীর সাংবাদিক খোকন তালুকদারকে সঙ্গে নিয়ে সন্ধ্যায় সেলিম কলেজ রোডের আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ঢুকতেই উত্তেজিত হয়ে ওঠেন মিঠু। তার কাছ থেকে মোটরসাইকেলের চাবি, ডিএসএলআর ক্যামেরা এবং দুটি মুঠোফোন সেট নিয়ে যায় মিঠুর কর্মীরা। খবর পেয়ে হিজলা উপজেলা প্রেস ক্লাব সভাপতি দেলোয়ার হোসেনও সেখানে হাজির হন। ইতিমধ্যে মুঠোফোনের কললিস্ট দেখে বরিশালের সাংবাদিকদের ঘটনা জানানোয় সেলিম এবং বরিশালের সিনিয়র সাংবাদিকদের নাম ধরে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন মিঠু। চেয়ারম্যানের উত্তেজনা দেখে তার সামনে সেলিমকে বেদম মারধর করে তার কর্মীরা। পরে তার মোটরসাইকেলের চাবি, ডিএসএলআর ক্যামেরা এবং দুটি মুঠোফোন সেট দুটি ফেরত দেওয়া হয়।  সেলিম হিজলার গুয়াবাড়িয়ার পূর্ব কোড়ালিয়ায় নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন। তিনি জানান, হিজলা থেকে মুলাদী গিয়ে থানায় অভিযোগ করার মতো কোনো পরিস্থিতি নেই। বরং ভয়ে-আতঙ্কে নিজ বাড়িতে দিন কাটছে তার।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর