শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৪ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:১০

ব্লগার অনন্ত বিজয় হত্যা মামলায় চিকিৎসকের সাক্ষ্যগ্রহণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

বিজ্ঞানমনস্ক লেখক অনন্ত বিজয় দাশ হত্যা মামলার আরেক সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করেছে আদালত। গতকাল সিলেটের সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. নুরুল আমিন বিপ্লবের আদালতে সাক্ষ্য দেন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক সামসুল আমিন। সুরতহাল প্রতিবেদনের সাক্ষী হিসেবে তিনি সাক্ষ্যপ্রদান করেন। এ নিয়ে চাঞ্চল্যকর এই মামলার ১৬ জন সাক্ষী সাক্ষ্য প্রদান করলেন। ২০১৫ সালের ১২ মে সকালে নিজ বাসার সামনে খুন হওয়ার পর অনন্ত বিজয়ের মরদেহ উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। সেখানেই মরদেহের সুরতহাল করা হয়। সুরতহালের সময় সাক্ষী হিসেবে ডা. সামসুল আমিন উপস্থিত ছিলেন।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম বলেন, এই মামলায় মোট ২৯ জন সাক্ষী রয়েছেন।

এর মধ্যে পাঁচ বছরে ১৬ জন সাক্ষ্য প্রদান করলেন।

তিনি জানান, এর আগে গত ১ ডিসেম্বর আবুল কাশেম নামের এক কলেজ শিক্ষক এই মামলায় সাক্ষ্য প্রদান করেন। এছাড়া ৩ নভেম্বর ও ৬ অক্টোবর আরও দুই সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আবদুল মজিদ খান বলেন, এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষীসহ ১৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ বাকি আছে। দ্রুত সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্নের প্রক্রিয়া চলছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের ১২ মে সকালে সিলেট নগরীর সুবিদবাজারে নিজ বাসার সামনে খুন হন বিজ্ঞান লেখক ও গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক অনন্ত বিজয় দাশ। কর্মস্থলে যাওয়ার জন্য বাসা থেকে বের হলে উগ্রবাদীরা তাকে কুপিয়ে হত্যা করে। হত্যাকান্ডের দিনই অনন্তের বড় ভাই রতেœশ্বর দাশ বিমানবন্দর থানায় অজ্ঞাত চারজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। বিজ্ঞান বিষয়ে লেখালেখির কারণে অনন্তকে ‘উগ্র ধর্মান্ধ গোষ্ঠী’ পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে বলে এতে অভিযোগ করা হয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর