শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৭ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ মে, ২০২১ ০১:৫৪

ভারত থেকে ফিরেছেন আট শতাধিক যাত্রী

দুই শিক্ষার্থীর করোনা পজিটিভের তথ্যে আতঙ্ক

প্রতিদিন ডেস্ক

Google News

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ২১ দিনে ভারত থেকে দেশে ফিরেছেন ৬২৭ যাত্রী। এছাড়া বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে ফিরেছেন ২০২ জন। এরমধ্যে তিন শিক্ষার্থীর করোনা পজিটিভের তথ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

এছাড়া যশোরে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভারত ফেরত ক্যান্সার রোগীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্য।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে গত ২১ দিনে ভারত থেকে দেশে ফিরেছেন ৬২৭ যাত্রী। তাদের মধ্যে ৬১২ জন বাংলাদেশি নাগরিক ও ১৫ জন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাসে কর্মরত ভারতের নাগরিক। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইমতিয়াজ আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের রাজধানী আগরতলায় বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশন থেকে নো অবজেকশন সার্টিফিকেট (এনওসি) নিয়ে এবং ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আরটিপিসিআর ল্যাবের করোনা পরীক্ষার সনদ নিয়ে দেশে ফেরার নির্দেশনা দেয় বাংলাদেশ সরকার। সেই নির্দেশনা মোতাবেক গত ২১ দিনে ৬২৭ জন বাংলাদেশে ফিরেছেন। এর মধ্যে সর্বশেষ গতকাল ২৭ জন দেশে ফিরেছেন। ৬২৭ জনের মধ্যে ৬১২ জন বাংলাদেশি নাগরিক ও ১৫ জন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাসে কর্মরত ভারতের নাগরিক। মো. ইমতিয়াজ আহমেদ আরও বলেন, শনিবার ১২ জন যাত্রী বাংলাদেশে ফিরেছেন। তাদের মধ্যে তিনজনকে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল ও নয়জনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ফিরে আসা সব যাত্রীকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ২৭৩ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

লালমনিরহাট : ভারতে থেকে বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে আসা তিন শিক্ষার্থীর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। ওই তিন শিক্ষার্থী বুড়িমারী স্থলবন্দরের সাম টাইম আবাসিক হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। এদিকে ভারত ফেরত তিন শিক্ষার্থীর করোনা পজিটিভের খবর ছড়িয়ে পড়ায় লালমনিরহাটজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। গতকাল বিকাল সাড়ে ৫টায় লালমনিরহাটের সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ সময় তিনি  বলেন ওই তিন শিক্ষার্থীর করোনা ভারতীয় ভেরিয়েন্ট কি না তা পরীক্ষার জন্য নমুনা ঢাকায় পাঠানো হবে।

যশোর : শহরের বলাকা হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভারত ফেরত এক ক্যান্সার রোগীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বিকাল সোয়া তিনটার দিকে বিমলচন্দ্র দে (৫৬) নামের ওই ব্যক্তি তার হোটেল কক্ষেই মারা যান। তিনি শরীয়তপুর সদর উপজেলার পালং গ্রামের গৌরাঙ্গ চন্দ্র দের ছেলে। যশোর স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে জানানো হয়েছে, বিমলচন্দ্র ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসার জন্য ভারতে গিয়েছিলেন। ৮ মে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফেরার পর ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে যশোর শহরের বলাকা হোটেলে তাকে রাখা হয়। তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে যশোরের সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন বলেন, ভারত থেকে করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়েই বিমলচন্দ্র দেশে প্রবেশ করেছিলেন। ক্যান্সারের কারণেই তিনি মারা গেছেন। তারপরও তার শরীরে করোনাভাইরাস ছিল কি না, তা নিশ্চিত হতে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর